• সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ১ পৌষ ১৪২৬
  • ||

‘দেব-জিৎ ছোট পর্দার শিল্পী, তাদের ছবি ঢালিউডের বড় পর্দায় চলে না’

প্রকাশ:  ১৩ জুলাই ২০১৯, ১৪:৪১ | আপডেট : ১৩ জুলাই ২০১৯, ১৫:৪১
মহিব আল হাসান

শুক্রবার ঢালিউডে মুক্তি পেয়েছে ভারতীয় বাংলা সিনেমা ‘কিডন্যাপ’। গতকাল দেশে ৫০টি সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে ভারতের এই ছবি। রাজা চন্দ পরিচালিত ছবিটিতে জুটি বেঁধে অভিনয় করেছেন দেব ও রুক্মিণী। ছবিটি মুক্তির পর তেমন সাড়া ফেলতে পারেনি ঢাকাই সিনেমার প্রেক্ষাগৃহগুলোতে। ছবিটি আমদানি করেছে শাপলা মিডিয়া।

শুক্রবার (১২ জুলাই) দেশিয় সিনেমা ‘ভালোবাসা ডটকম’ মুক্তি পাওয়ার কথা থাকলে সেটি বাদ দিয়ে বেশি লাভের আশায় কলকাতার ছবিটি প্রদর্শন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন হল মালিকরা। এর ফলে দেশিয় দুটি সিনেমা ‘পাসওয়ার্ড’ ও ‘আব্বাস’ হল থেকে নামানো হয়। এবং হল না পাওয়ায় মুক্তির মিছিল থেকে সরে দাঁড়ায় মোহাম্মদ আসলাম পরিচালিত ‘ভালোবাসা ডটকম’। এতকিছুর পর হলে দর্শক টানছে না দেব অভিনীত ছবিটি।

শাপলা মিডিয়ার কর্ণধার সেলিম খান ছবিটি মুক্তি দেওয়ার বিষয়ে বলেছিলেন দেশিয় সিনেমা হল বাঁচাতে কলকাতার ছবি আমদানি করে দেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দিচ্ছি। কিন্তু হলের কর্মচারীরা তার কথায় ভিন্নমত প্রকাশ করেছেন।

শুক্রবার ফার্মগেটের আনন্দ সিনেমা হলে ‘পাসওয়ার্ড’ সিনেমা নামিয়ে কলকাতার ‘কিডন্যাপ’ ছবিটি চালানো হচ্ছে। আনন্দ সিনেমা হলের গেটম্যান আব্দুর রহমান বলেন, পুরানত ছবি চালাতেও আমাদের এখানে এক-দেড়শ দর্শক সিনেমা দেখতে আসে। গত সপ্তাহে চলছিল শাকিব খানের ‘পাসওয়ার্ড’ শেষে দুদিন ছাড়া পুরো সপ্তাহই দর্শক ছিল। তবে শুক্রবার (১২ জুলাই) দেবের ছবির মুক্তি পাবার পর সিনেমা হলে দর্শক নাই। আসলে আমাদের দেশে কলকাতার হিরো বা কলকাতার বাংলা ছবি দর্শক দেখতে চায় না।

মধুমিতা সিনেমা হলেরও একই অবস্থা। এই হলে চলছিলো ‘আব্বাস’ সিনেমাটি। সেটি নামিয়ে চলানো হচ্ছে ‘কিডন্যাপ’ ছবিটি। কিন্তু হলে তেমন কোনো দর্শক নেই কলকাতার ছবিটি চালানোর পর। শুক্রবার সন্ধার শোতে মোটামুটি দর্শক হলেও বিকেলের শোতে তেমন দর্শক ছিলো না।

মধুমিতা সিনেমা হলের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মকর্তা বলেন, নিরবের ‘আব্বাস’ সিনেমাটি দেখার জন্য মুক্তির দিন যে পরিমাণ দর্শক এসেছিলো তার একভাগো এই ছবিটি দেখতে দর্শক আসে নি। আমাদের দেশের ছবির নায়ক যেই হোক তারপরও হলে কিছু দর্শক আসে। কিন্তু ভারতের যত বড় সুপারস্টার হোক তাদের ছবি বাংলাদেশের মানুষ গ্রহণ করেন না।

রাজমনি সিনেমা হলের ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা দিলিপ বড়ুয়া বলেন, আমাদের দেশে ভারতীয় ছবি চলবে না। দেবজিৎ হচ্ছে আমাদের দেশের ছোট পর্দার শিল্পী। তাদের ভাষা বা সমাজ আমাদের মতো নয়, দর্শক সিনেমা হলে আসে নিজের জীবন দেখতে। আমাদের হলে আমাদের নিজেদের ছবি ছাড়া অন্য ছবি চলবে না।


পূর্বপশ্চিমবিডি/এমএইচ

দেব
  • আরও পড়তে ক্লিক করুন:
  •  দেব
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত