• বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট ২০২২, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯
  • ||

দ্বিতীয়বারের মত নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু হচ্ছে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা

প্রকাশ:  ২৮ জুলাই ২০২২, ১৯:৩৫
নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছভুক্ত ভর্তি পরীক্ষার অন্যতম একটি কেন্দ্র। দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্ববিদ্যালয়টিতে গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়টির কলা ভবন, বিজ্ঞান ভবন, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ ভবন ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ ভবনের মোট ১৩৭টি কক্ষে পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে। এবার বিশ্ববিদ্যালয়টিতে এ-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ৮ হাজার ৫ শত ২৭ জন, বি-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ৭ হাজার ৭ শত ৮৩ জন এবং সি-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ১ হাজার ৫ শত ০৫ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে।

বৃহস্পতিবার(২৮ জুলাই) বেলা ১২ টায় বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখরের সভাপতিত্বে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে গুচ্ছভুক্ত ২২টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত একটি সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার কৃষিবিদ ড. হুমায়ুন কবীর, কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আহমেদুল বারী, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক তুহিনুর রহমান (তুহিন অবন্ত), ফিল্ম এন্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের প্রভাষক মো. রাগীব রহমান এবং আমন্ত্রিত সাংবাদিকবৃন্দ।

২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে গুচ্ছপদ্ধতির এই ভর্তি পরীক্ষায় ২২টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় অংশ নেবে। দেশব্যাপী একযোগে মোট ১৯টি কেন্দ্রে ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে। পরীক্ষাগুলো ধারাবাহিকভাবে ইউনিট-এ (বিজ্ঞান) এর ভর্তি পরীক্ষা আগামী ৩০ জুলাই, ২০২২ (দুপুর ১২টা থেকে-১টা), ইউনিট-বি (মানবিক) এর ভর্তি পরীক্ষা ১৩ আগস্ট, ২০২২ (দুপুর ১২টা থেকে-১টা), ইউনিট-সি (বাণিজ্য) এর ভর্তি পরীক্ষা আগামী ২০ আগস্ট, ২০২২ (দুপুর ১২টা থেকে-১টা) অনুষ্ঠিত হবে। এবারের গুচ্ছভুক্ত ২২ টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে আছে:- ১. জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, ত্রিশাল, ময়মনসিংহ ২. জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা ৩. ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া ৪. শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট ৫. খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা ৬. হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, দিনাজপুর ৭. মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, টাঙ্গাইল ৮. পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী ৯. নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী ১০. কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা ১১. যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর ১২. বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, রংপুর ১৩. পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা ১৪. বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, গোপালগঞ্জ ১৫. বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল ১৬. রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙ্গামাটি ১৭. রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ, সিরাজগঞ্জ ১৮.বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি,বাংলাদেশ, গাজীপুর ১৯. শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়, নেত্রকোনা ২০.বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, জামালপুর, ২১. বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়, কিশোরগঞ্জ ও ২২. চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, চাঁদপুর)।

ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের একটি মেধা তালিকা প্রকাশ করা হবে। এরপর মেধা তালিকায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা তাদের পছন্দমত তালিকাভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন। অন্যদিকে প্রত্যেক বিশ্ববিদ্যালয় তাদের আসন সংখ্যার সামর্থের উপর ভিত্তি করে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে। জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ২৪টি বিভাগে ১০৮০টি আসনে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। প্রতিটি ইউনিটের ফলাফল জিএসটি গুচ্ছভুক্ত সমন্বিত পরীক্ষার ওয়েবসাইট (www.gstadmission.ac.bd)-এ প্রকাশ করা হবে। ভর্তি পরীক্ষায় নূন্যতম নাম্বার ৩০ পেতে হবে। প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য ০.২৫ নম্বর কাটা যাবে। শুধুমাত্র জিএসটি গুচ্ছভুক্ত সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীরাই যোগ্যতা সাপেক্ষে নির্ধারিত বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন করতে পারবে। ভর্তি পরীক্ষা সম্পর্কিত যে কোন বিষয়ে ‘জিএসটি গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়সমূহের সমন্বিত ভর্তি কমিটি (২০২১-২০২২)’-র সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে।

ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে সকলের সহযোগিতা চেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখর বলেন, ত্রিশালের নামাপাড়া জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের স্মৃতিধন্য। কবির স্পর্শে এ মাটি ধন্য। সেই উর্বর মাটিতে কবির নামে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়। যা এই অঞ্চলের একমাত্র সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয়। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে মেধাবী শিক্ষার্থীরা ভর্তি হলে এখানকার জনপদ আরও উন্নত হবে যা আর্থ সামাজিক দিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ। তাই ভর্তি পরীক্ষা আমাদের কাছে অত্যন্ত তাৎপর্যবহ। প্রতিবারের মতো এবারেও অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে ভর্তি কার্যক্রম সম্পন্ন করার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ভর্তি পরীক্ষা উপলক্ষ্যে আগত পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকবৃন্দ আপনাদের আতিথেয়তা ও সহযোগিতায় সুষ্ঠুভাবে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারে সেটিই প্রত্যাশা। আর সেজন্য ত্রিশালের স্থানীয় জনগণ, প্রশাসন, সুধী সমাজ, সাংবাদিকবৃন্দ, সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠনসহ সকলের আন্তরিক সহযোগিতা আমরা কামনা করছি।

পূর্বপশ্চিম- শর্মিষ্ঠা/ এনই

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close