• বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২২, ১৩ মাঘ ১৪২৮
  • ||

জালিয়াত সেই শিক্ষককে ডেকেছে মন্ত্রণালয়

প্রকাশ:  ২২ নভেম্বর ২০২১, ২৩:৩২
নিজস্ব প্রতিবেদক

বরখাস্ত হওয়া এক শিক্ষক নিয়োগ জালিয়াতি করে নিজেকে প্রধান শিক্ষক দাবি করার ঘটনার সুরাহার করতে শুনানি ডেকেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের চিঠি বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) পাঠানো হয়েছে।

শেরপুরের ঝিনাইগাতি উপজেলার হাজি অছি আমরুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের বরখাস্ত সহকারী শিক্ষক জাহাঙ্গীর সেলিম ২০১৩ সালের ২৭ জানুয়ারি থেকে বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকার কারণে ২০১৪ সালের ৩ আগস্ট সাময়িক বরখাস্ত হন। বরখাস্তের পর জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে প্রধান শিক্ষক হিসেবে এমপিওভুক্ত হন তিনি। ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির স্বাক্ষর জালিয়াতি করে ২০১৩ সালের ১৩ জুন প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগপত্র তৈরি করেন। গোপনে জাল কাগজপত্র জমা দিয়ে এমপিও আবেদন করে ২০১৩ সালের নভেম্বরে প্রধান শিক্ষক হিসেবে এমপিওভুক্ত হন।

বিষয়টি জানাজানি হলে ওই সময়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক উম্মে কুলসুম ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিসহ প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন স্তরে অভিযোগ করেন। তদন্তে অভিযোগের প্রমাণ পাওয়ার পর তার এমপিও স্থগিত করা হয়। ফৌজদারি আইনে মামলার করার নির্দেশ দেওয়া হয় মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর থেকে। এরপর বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে জালিয়াত শিক্ষকের এমপিও স্থায়ীভাবে কর্তনের আবেদন জানান বর্তমান প্রধান শিক্ষক উম্মে কুলসুম।

জানতে চাইলে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান শিক্ষক উম্মে কুলসুম বলেন, ‘শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ২০১৯ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি সভায় আমি এবং জালিয়াতির দায়ে বরখাস্ত জাহাঙ্গীর সেলিমের সশরীরে শুনানির সিদ্ধান্ত হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ২০২০ সালের ১৮ মার্চ শেরপুর জেলা শিক্ষা অফিসারকে শুনানির তারিখ ও সময় পরে জানানো হবে বলে অবহিত করা হয়। এরপর আর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়নি। বৃহস্পতিবারের চিঠিতে আগামী ৩০ নভেম্বর শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে। উভয়পক্ষকে হাজির থাকতে বলা হয়েছে। ’

উম্মে কুলসুম জানান, জালিয়াতির দায়ে জাহাঙ্গীর সেলিমের বিরুদ্ধে অধিদফতর মামলার করার নির্দেশ দিয়েছিল। মামলার পর আদালত ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে আদালত। অভিযোগ গঠনের দিনই জাহাঙ্গীর সেলিমকে জেল হাজতেও পাঠায় আদালত।

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

শিক্ষক
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

ঘটনা পরিক্রমা : শিক্ষক

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close