• সোমবার, ১০ মে ২০২১, ২৭ বৈশাখ ১৪২৮
  • ||

বেসরকারি শিক্ষকদের বৈশাখী ভাতার চেক ছাড়

প্রকাশ:  ১২ এপ্রিল ২০২১, ১৮:৪২
নিজস্ব প্রতিবেদক

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কর্মরত এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের বৈশাখী ভাতার চেক ছাড় করা হয়েছে। ১৩ থেকে ১৮ এপ্রিল পর্যন্ত সোনালী, রূপালী, জনতা ও অগ্রণী ব‌্যাংক থেকে ভাতার টাকা তুলতে পারবেন তারা।

সোমবার (১২ এপ্রিল) বৈশাখী ভাতার ৮টি চেক অনুদান বণ্টনকারী চার ব্যাংকে পাঠায় মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর।

জানা গেছে, এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীরা মূল বেতনের ২০ শতাংশ বৈশাখী ভাতা পাবেন। এবার বৈশাখী ভাতা বাবদ স্কুল ও কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীদের মোট ১৪৬ কোটি ৬৫ লাখ টাকা দেওয়া হবে।

তবে মাত্র একদিন বাকি থাকায় পহেলা বৈশাখীর পরে এ অর্থ তারা হাতে পাবেন বলে অভিযোগ শিক্ষক নেতৃবৃন্দের।

দেরি করে চেক অনুমোদন হওয়ায় এবার শিক্ষক-কর্মচারীরা পহেলা বৈশাখের ভাতা নির্ধারিত সময়ে তুলতে পারছেন না। এজন্য শিক্ষক নেতৃবৃন্দ অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। অন্যদিকে সরকারি কলেজ ও স্কুল শিক্ষকরা ১০ এপ্রিলের মধ্যে এ ভাতা হাতে পেয়েছেন। এছাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরাও বৈশাখী ভাতার টাকা পেয়েছেন।

২০১৯ সাল থেকে বৈশাখী ভাতা পাওয়া শুরু করেন এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীরা। ২০১৮ সালের ৮ নভেম্বর বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের জন্য বৈশাখী ভাতা ও ৫ শতাংশ ইনক্রিমেন্ট দেয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার পর সে বছর থেকেই শিক্ষকরা ৫ শতাংশ ইনক্রিমেন্ট পাচ্ছেন। এমপিওভুক্ত প্রায় পাঁচ লাখ শিক্ষক-কর্মচারী বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে এ বছরও মূল বেতনের ২০ শতাংশ বৈশাখী ভাতা পাবেন।

বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক সমিতির সভাপতি নজরুল ইসলাম রনি বলেন, ২০ শতাংশ বৈশাখী ভাতায় আমরা সন্তুষ্ট নই। সরকারি শিক্ষকদের মতো মাসিক বেতনের শতভাগ বেসিক দেয়ার দাবি দীর্ঘ দিন ধরে করে আসলেও তা বাস্তবায়ন করা হয়নি। তার উপরে এবার কর্মকর্তাদের উদাসীনতায় এ বাবদ চেক বিলম্ব করে ছাড় দেয়ায় পহেলা বৈশাখের পরে এ অর্থ হাতে পাবেন বলে অভিযোগ করেন তিনি।

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

শিক্ষক
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

ঘটনা পরিক্রমা : শিক্ষক

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close