• বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৫ আশ্বিন ১৪২৭
  • ||
শিরোনাম

এমপিও নীতিমালা সংশোধনী চূড়ান্তকরণের সভায় বিএড স্কেলসহ যেসব আলোচনা

প্রকাশ:  ০৬ আগস্ট ২০২০, ১১:২৬ | আপডেট : ০৭ আগস্ট ২০২০, ১৪:০৩
নিজস্ব প্রতিবেদক

বেসরকারি স্কুল-কলেজের এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামোর কয়েকটি ধারা ও উপধারা সংশোধনী চূড়ান্তকরণের সভা বুধবার (৫ আগস্ট) অনুষ্ঠিত হয়েছে। যদিও ননএমপিও শিক্ষক নেতারা সভায় নতুন নতুন কিছু দাবি উত্থাপন করেছেন। নীতিমালা সংশোধন কমিটির সভায় এসব দাবি উত্থাপন না করে চূড়ান্তকরণ সভায় এসব দাবি উত্থাপন করেছেন তারা।

ইতোমধ্যে এমপিও নীতিমালার সংশোধনী চূড়ান্তকরণে কয়েকদফা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের একাধিক সূত্র গণমাধ্যমকে এমন তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সূত্র জানায়, নীতিমালা চূড়ান্তকরণ সভায় শিক্ষক নেতারা নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী গ্রন্থাগারিক পদটি নীতিমালায় অন্তর্ভুক্ত করার দাবি তোলেন। যদিও এসব দাবি চূড়ান্তকরণ সভায় না তুলে, নীতিমালা সংশোধন কমিটির সভায় তোলার কথা ছিল। এছাড়া সভায় বিএড স্কেল নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

সূত্র আরও জানায়, আজকের সভায় তেমন কোনো কিছুই চূড়ান্ত হয়নি। নীতিমালা সংশোধনের যেসব দিক কমিটি ঠিক করেছে তা চূড়ান্ত করেন সভায় উপস্থাপন করা হচ্ছে। মন্ত্রণালয় শীর্ষস্থানীয়দের অনুমোদন নিয়ে সংশোধিত নীতিমালা চূড়ান্ত করা হবে।

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির সভাপতিত্বে সভায় অংশগ্রহণ করেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো মাহবুব হোসেন।

এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো সংশোধনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন নীতিমালা সংশোধন কমিটির আহবায়ক অতিরিক্ত সচিব মমিনুর রশিদ আমিন।

তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো সংশোধনী চূড়ান্তকরণে ফের সভা অনুষ্ঠিত হবে। আজকের সভায় কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তবে, এ বিষয়ে এখনই কিছু বলা যাচ্ছে না।

গত বছরের শেষ দিকে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের মধ্য থেকে দাবি বিদ্যমান নীতিমালা ও জনবল কাঠামো সংশোধনের উদ্যোগ নেয় সরকার। এ লক্ষ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয় কমিটি গঠন করে। কমিটি গত জুন মাসে নীতিমালা সংশোধনের সুপারিশ প্রতিবেদন তৈরি করে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির কাছে জমা দেয়।

গত ১২ নভেম্বর বেসরকারি স্কুল ও কলেজের এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো সংশোধনে ১০ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের বেসরকারি মাধ্যমিক শাখার অতিরিক্ত সচিব মোমিনুর রশিদ আমিনকে কমিটির আহ্বায়ক করা হয়। কমিটিতে নন-এমপিও শিক্ষক নেতারাও সদস্য হিসেবে ছিলেন। তবে, প্রথম দিনে তারা কিছু লিখিত বক্তব্য দিয়েছেন। তাদের পক্ষ থেকে ওটাই প্রথম ও শেষ ভূমিকা। এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো পর্যালোচনা করে প্রয়োজনীয় সংস্কারের সুপারিশ করতে বলা হয়েছিল এ কমিটিকে। এরপর এ লক্ষ্যে পাঁচটি সভা করে কমিটি।

গত ১১ মার্চ এমপিও নীতিমালা কমিটির পঞ্চম সভা, ৭ জানুয়ারি চতুর্থ সভা, ২২ ডিসেম্বর তৃতীয় সভা, ১২ ডিসেম্বর দ্বিতীয় সভা এবং ৪ ডিসেম্বর এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো সংশোধনে গঠিত কমিটির প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভাগুলোর আলোচনা নিয়েই এমপিও নীতিমালা সংশোধনের লিখিত সুপারিশ তৈরি করা হয়েছে বলে জানা যায়।


পূর্বপশ্চিমবিডি/জেআর

শিক্ষক
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close