• বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬
  • ||

গার্লফ্রেন্ডের সাথে ছবি ফেসবুকে দেয়ায় মারধর, আত্মহত্যার চেষ্টা শিক্ষার্থীর

প্রকাশ:  ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩:০৭
নোবিপ্রবি প্রতিনিধি
আত্নহত্যা চেষ্টাকারী সোহেল

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে(নোবিপ্রবি) ফেসবুকে ছবি দেয়া নিয়ে মারধর করার পর অপমানে এক শিক্ষার্থী আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। অজ্ঞান অবস্থায় তাকে নোয়াখালী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ।আত্মহত্যা চেষ্টাকারী ও হামলার শিকার সোহেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী।

জানা যায়, সোহেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থী দুর্জয় ও তার গার্লফ্রেন্ডের একটি অস্পষ্ট ছবি (পেছন থেকে তোলা) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করে। এই ছবিকে কেন্দ্র করে গত মঙ্গলবার সোহেলকে ডেকে পাঠায় দুর্জয়। সোহেল নীল দীঘি পাড়ে আসলে তার দেয়া স্ট্যাটাসের জন্য জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। স্ট্যাটাসের জন্য সোহেল ক্ষমা চায়। কিন্তু দুর্জয় তার দলবল নিয়ে সোহেলকে মারধর করে। পরে দুর্জয়ের গার্লফ্রেন্ড জেনি সোহেলকে কান ধরিয়ে হাঁটায়।

এঘটনায় সোহেল আত্মহত্যা চেষ্টা করলে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। পরবর্তীতে সহপাঠীরা তাকে নোয়াখালী সদর হাসপতালে নিয়ে যায়।

সোহেলের সহপাঠীরা জানান, এ সময় দুর্জয়ের প্রেমিকা মারিয়াম সিদ্দিকা জেমি নামে প্রথম বর্ষের এক শিক্ষার্থী তার সিনিয়র সোহেলকে কান ধরিয়ে হাঁটায় এবং লাঞ্ছনা করে। জেমি ও সোহেল একই বিভাগের শিক্ষার্থী। এ সময় সোহেল তার দেওয়া স্ট্যাটাসের জন্য ক্ষমা চাইলেও তার কথা গ্রাহ্য না করে দুর্জয় তার দলবল নিয়ে সোহেলের ওপর হামলা চালায়।

সহপাঠীরা আরও জানান, সোহেল দুর্জয় ও জেমির পেছন থেকে তোলা একটি অস্পষ্ট ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোষ্ট করে। এই ছবিকে কেন্দ্র করে সোহেলের ওপর ক্ষোভে ফেটে পড়ে দুর্জয় ও তার সঙ্গীরা।

সহপাঠীরা জানান, জুনিয়র কর্তৃক লাঞ্ছনা সহ্য করতে না পেরে বিকেলে সোহেল আত্মহত্যা চেষ্টা করেন। তাকে অজ্ঞান হয়ে পড়ে থাকতে দেখে তার সহপাঠীরা তাকে নোয়াখালী সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। দীর্ঘ ৫ ঘন্টা পর রাতে জ্ঞান ফিরলেও তিনি কোনো কথা বলেননি।

এই হামলার ঘটনায় সাকিবুল হাসান দূর্জয়ের সঙ্গে সমাজকর্ম ২০১৮-১৯ বর্ষের সোহান, বাংলা বিভাগের তানভীর মাহতাব সামিসহ অজ্ঞাতনামা প্রায় ১০ জন ওই হামলায় অংশ নেন বলে সোহেলের সহপাঠীরা জানান।

হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. নেওয়াজ মোহাম্মদ বাহাদুর। তিনি বলেন, 'এ হামলার ঘটনায় লিখিত অভিযোগ দেওয়া হলে বিশ্ববিদ্যালয় আইনানুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।'

জানা যায়, হামলাকারীরা সকলে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাকিব মোশাররফ ধ্রুব'র একটি গ্রুপের অনুসারী।

উল্লেখ্য, ঘটনাস্থলে সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে হামলাকারীরা সাংবাদিককে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠে।

পূর্বপশ্চিমবিডি/জিএম

নোবিপ্রবি,২য় বর্ষের শিক্ষার্থী,ফেসবুকে পোস্ট,আত্মহত্যা
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close