• মঙ্গলবার, ২১ জানুয়ারি ২০২০, ৮ মাঘ ১৪২৭
  • ||

সরকারি স্কুলে ভর্তির বয়স নির্ধারণ

প্রকাশ:  ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ০২:০০ | আপডেট : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ০২:৪৫
নিজস্ব প্রতিবেদক
ফাইল ছবি

সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ২০২০ শিক্ষাবর্ষে ভর্তির বয়স নির্ধারণ করে দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। শিক্ষার্থীর প্রথম শ্রেণিতে ভর্তির বয়স অনুসারে পরবর্তী শ্রেণিতে ভর্তি হতে হবে। বিষয়টি জানিয়ে জেলা প্রশাসকদের জন্য নির্দেশনা জারি করেছে মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ।

সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী ভর্তির বয়স নিয়ে দ্বিধার সৃষ্টি হয়েছিল। ২০১৫ সালে ১ম শ্রেণিতে ভর্তিতে শিক্ষার্থীর বয়স পাঁচ বছর নির্ধারণ করা হলেও ২০১৬ সালে সে বয়স ছয় বছর করা হয়। তাই পরবর্তী শ্রেণিতে এসব শিক্ষার্থীর ভর্তির ক্ষেত্রে বয়স কীভাবে নির্ধারিত হবে তা নিয়ে দ্বিধান্বিত হয়ে পড়েছিলেন প্রতিষ্ঠান প্রধান ও ভর্তি কমিটির সদস্যরা।

এ জটিলতা নিরসনে সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষা ভর্তির বয়স নির্ধারণ করে দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ।

মন্ত্রণালয়ের উপসচিব ড. মো মোকছেদ আলী স্বাক্ষরিত নির্দেশনায়, ২০১৫ সালের প্রথম শ্রেণিতে ভর্তি হওয়ার সময় শিক্ষর্থীর বয়স অনুসারে পরবর্তী শ্রেণিতে ভর্তির ক্ষেত্রে তার বয়স নির্ধারণ করতে হবে। আর ২০১৬ সালের ১ম শ্রেণিতে ভর্তি হওয়ার সময় শিক্ষার্থীর বয়স অনুসারে পরবর্তী শ্রেণিতে তার বয়স নির্ধারণ করতে হবে।

এবছর রাজধানীসহ সারা দেশের ৩৫৮টি সরকারি হাইস্কুলে অনলাইনে শিক্ষার্থী ভর্তির আবেদন নেয়া শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) মধ্যরাতে শেষ হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের ৭১ হাজার ২৬৩ আসনের বিপরীতে মোট আবেদন করেছে ৩ লাখ ৭৫ হাজার ৬৩ জন। গড়ে প্রতি আসনে ৫ জনের বেশি শিক্ষার্থী ভর্তিযুদ্ধে লিপ্ত হচ্ছে। এই ৩৫৮টির মধ্যে এবার রাজধানীর ৪২টি হাইস্কুলে এবার ভর্তি করা হবে ১১ হাজার ৯২০ শিক্ষার্থী। এর বিপরীতে আবেদন পড়েছে ৭৭ হাজার ৪৩৫টি। এতে প্রতি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় লিপ্ত হচ্ছে ৬ জনের বেশি। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি) সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

এবার প্রথম থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত প্রতিটি ক্লাসেই আসন শূন্য থাকা সাপেক্ষে শিক্ষার্থী ভর্তি নেয়া হবে। সবচেয়ে বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে প্রথম শ্রেণিতে। সারা দেশে মোট শূন্য আসনের মধ্যে সবচেয়ে বেশি প্রথম শ্রেণিতে ৩ হাজার ৫৮৮টি। আর এসব আসনে আবেদন করেছে ৫৬ হাজার ৬১০ জন। ৯টি শ্রেণির মধ্যে ভর্তির জন্য সবচেয়ে বেশি লড়াই হবে এই শ্রেণিতে। প্রতি আসনের বিপরীতে প্রার্থী ১৬ জন।

সংশ্লিষ্টরা জানান, নতুন জাতীয়করণসহ সারা দেশে সরকারি হাইস্কুল আছে ৬৭৪টি। এর মধ্যে ৩৫৮টি অনলাইন ভর্তির অধীনে এসেছে। এছাড়া আরও ডজনখানেক পুরনো স্কুল অনলাইন ভর্তির অধীনে আসেনি। স্থানীয় পর্যায়ে ইন্টারনেটের ঘাটতি, বিদ্যুৎ সমস্যা, দুর্গম অঞ্চলের বাস্তবতাসহ অন্যান্য কারণে ওইসব প্রতিষ্ঠান অনলাইন ভর্তির আওতায় আসেনি।

এ প্রসঙ্গে মাউশি উপপরিচালক (মাধ্যমিক) আমিনুল ইসলাম টুকু জানান, বাগেরহাটের চালনা এবং নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলায় কানেকটিভিটিসহ অন্যান্য সমস্যা আছে। এভাবে আরও কিছু স্কুলে বাস্তব সমস্যার কারণে এবার অনলাইনে ভর্তি কার্যক্রমের আওতায় আনা সম্ভব হয়নি। তবে ভর্তি প্রক্রিয়ার জন্য ঢাকা মহানগর এবং বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় আলাদা কমিটি গঠন করা হয়েছে। ওইসব কমিটির তত্ত্বাবধানে কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। এক্ষেত্রে জেলায় ডিসি এবং উপজেলায় ইউএনও’র নেতৃত্বে প্রস্তাবিত কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেয়া যাবে।

জানা গেছে, এবারও দ্বিতীয় থেকে অষ্টম শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে লিখিত পরীক্ষার মাধ্যমে। তবে প্রথমবারের মতো সৃজনশীল বা রচনামূলক প্রশ্নের পরিবর্তে অল্পকথায় বা এককথায় উত্তর দেয়ার মতো প্রশ্ন থাকছে। এছাড়া থাকবে শূন্যস্থান, টেবিল/চার্ট, সমস্যা সমাধান/ধাঁধা ইত্যাদি। মূলত উত্তরপত্র মূল্যায়নে নম্বর প্রদানে ভিন্নতা পরিহারের লক্ষ্যে এমন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। তবে প্রথম ও নবম শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষা হবে না। প্রথম শ্রেণিতে লটারি আর নবম শ্রেণিতে জেএসসি পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে ভর্তি করা হবে। রাজধানীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর ভর্তি পরীক্ষা এবং লটারির তারিখ মাউশি নির্ধারণ করে দিয়েছে। ঢাকার বাইরের পরীক্ষা ও লটারির তারিখ সংশ্লিষ্ট মহানগর, জেলা ও উপজেলা কমিটি নির্ধারণ করতে পারবে।

রাজধানীর ৩৯টি হাইস্কুলে এবং তিনটি স্কুলের (তিনটি) ফিডার শাখাসহ ৪২টি স্কুলকে ‘ক’, ‘খ’ ও ‘গ’ গ্রুপে ১৪টি করে ভাগ করা হয়েছে। এর মধ্যে ‘ক’ গ্রুপের স্কুলের পরীক্ষা ১৮ ডিসেম্বর, ‘খ’ গ্রুপের ১৯ এবং ‘গ’ গ্রুপের পরীক্ষা ২০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে।

এবারও রাজধানীর মোট ১৬টি হাইস্কুলে প্রথম শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। প্রথম শ্রেণিতে প্রায় ১ হাজার ২৬০ শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। এসব আসনের জন্য ২০ হাজার ৩৬৮ শিক্ষার্থী আবেদন করেছে। গড়ে প্রতি আসনের বিপরীতে প্রার্থী ১৬ জনের বেশি। এবার প্রথম শ্রেণিতে ভর্তি লটারিতে করা হবে। এই লটারি হবে ২৪ ডিসেম্বর।

পূর্বপশ্চিম/এসএস

শিক্ষক
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত