• বুধবার, ০৮ এপ্রিল ২০২০, ২৫ চৈত্র ১৪২৬
  • ||

যেভাবে যে কারণে বন্ধুকে খুন

প্রকাশ:  ০৫ মার্চ ২০২০, ০২:৫৭
নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর খিলক্ষেতের কাজী ফকির উদ্দিন রোডের খাঁ পাড়া এলাকায় বসবাস করতেন পাভেল (২২) ও আল রাকিব মুন্সি (১৮)। ২২ ফেব্রুয়ারি পাভেল খুন হয়। এরপর লাশ কাওলা সিভিল এভিয়েশন কবরস্থানের দক্ষিণ পাশে ফেলে রাখা হয়। ওই রাতে লাশ উদ্ধারের পর পাভেলের মা ইয়াসমিন বেগম বিমানবন্দর থানায় অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে একটি মামলা করেন।

এদিকে পুলিশে খবর দেয়া থেকে শুরু করে লাশ উদ্ধার তৎপরতায় সক্রিয় ছিল রাকিব। জানা যায়, বিমর্ষ চেহারা। ডান হাতের আঙুল কেটে গেছে। রক্ত লেগে আছে। এই অবস্থাতেই পুলিশকে জানায় পাভেলকে নিয়ে কাওলা এলাকায় গিয়েছিলো প্রতিবেশী আল রাকিব মুন্সি। হঠাৎ করেই সাত-আট জন দুর্বৃত্ত হামলা চালায়। ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে পাভেলকে।

খবর পেয়ে রাকিবকে সঙ্গে নিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যায় পুলিশ। উদ্ধার করা হয় লাশ। নির্জনস্থানে ছড়িয়ে রয়েছে রক্ত। এ ঘটনায় অজ্ঞাতদের আসামি করে মামলা করেন নিহত পাভেলের মা ইয়াসমিন বেগম। রাকিবকে এ বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। রাকিব জানায়, হত্যাকারীদের আগে কখনও দেখেনি। তবে দেখলে চিনতে পারবে। এরমধ্যে সন্দেহভাজনদের আটক করা হয়। কিন্তু তথ্য প্রযুক্তিসহ বিভিন্ন মাধ্যমে এই হত্যাকান্ডে তাদের সম্পৃক্ততা পাওয়া যায়নি। এরমধ্যেই হত্যা মামলার ছায়া তদন্ত শুরু করে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ ডিবি।

ডিবি’র তদন্তে উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। পাভেলের প্রতি ক্ষুব্ধ ছিলো আল রাকিব মুন্সি। দিন-দিন ক্রোধ বেড়েই চলছিলো। চোখের সামনে নিজের বোনকে নিয়ে আড্ডা দিতো পাভেল। বেড়াতে নিয়ে যেতো। এ বিষয়ে প্রতিবাদ করতে গেলেই পাভেলের চোখে শত্রুতে পরিণত হয় রাকিব। বাসায় আসা-যাওয়ার পথে দেখা হলেই তাকে ডেকে নিয়ে অপমান করতো। এমনকি গায়ে হাত তোলতো। এভাবেই চলছিলো দিনের পর দিন। হঠাৎ করেই হত্যাকাণ্ডের কিছুদিন আগে পাভেলের সঙ্গে রাকিবের ঘনিষ্ঠতা বাড়তে থাকে।

এ বিষয়টি সন্দেহের কারণ হিসেবে দেখে তদন্তে এগিয়ে যায় ডিবি। ডিবি’র অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) রিজভী কোরায়েশীর নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে মঙ্গলবার রাতে খিলক্ষেতের খাঁ পাড়া এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় রাকিবকে। শুরুতে জিজ্ঞাসাবাদে অসংলগ্ন জবাব দেয় রাকিব।

এক পর্যায়ের চাঞ্চল্যকর এই হত্যাকাণ্ড সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেয় রাকিব। রাকিব জানায়, বোনদের সঙ্গে আড্ডা দেয়া। কারণ-অকারণে নিজের শারীরিক শক্তি প্রদর্শন করার কারণেই পাভেলের প্রতি ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে। তাই শেষ পর্যন্ত হত্যা করার পরিকল্পনা করে। পরিকল্পনা অনুসারেই সম্পর্কটাকে অল্পদিনেই ইতিবাচক করে গড়ে তোলে। পাভেলের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা বাড়ায়। কিভাবে কোথায় হত্যা করা হবে- এ বিষয়েও পরিকল্পনা করে রাকিব। আটকের পর তার কাছে পাওয়া গেছে হত্যার ছক। সাদা কাগজে পাভেলের ছবি এঁকেছিলো রাকিব। পাশে একটি ছুরির ছবি।

নির্জনস্থানে ডেকে নেয়া প্রসঙ্গে জিজ্ঞাসাবাদে রাকিব জানায়, টাকার প্রলোভন দেখিয়ে গত ২২ শে ফেব্রুয়ারি কাওলা কবরস্থানের পাশে এক নির্জনস্থানে ডেকে নিয়ে যায় তাকে। রাকিব পশু-পাখি পালন করে। সে পাভেলকে জানায়, পাখির বাসা খুঁজতে গিয়ে ওই এলাকায় একটি গাছের নিচে স্বর্ণের চেইন পড়ে থাকতে দেখেছে। কিন্তু আশপাশে লোকজন থাকায় সেটি আনার সাহস পায়নি। কথা শুনে সঙ্গে সঙ্গেই যেতে চায় পাভেল। ঘটনাস্থলে পৌঁছে রাকিবের নির্দেশনা অনুসারে কিছুটা বাঁকা হয়ে মাটিতে পাভেল স্বর্ণের চেইন খুঁজতে থাকে। এই সুযোগে পেছনে দাঁড়িয়ে পকেটে রাখা ছুরিটি বের করে রাকিব। খুন করবে কি-না ভেবে আবার পকেটে ঢুকিয়ে রাখে। এরমধ্যেই পাভেল জানতে চায় এই চেইন কোথায়। খুঁজতে বলে রাকিব। এবার রাকিব ভাবতে থাকে পকেটে ছুরি দেখতে পেলে উল্টো রাকিবকেই মেরে ফেলবে পাভেল। সুঠাম দেহী পাভেলের সঙ্গে কিছুতেই পেরে উঠবে না রাকিব। ভাবতে ভাবতেই ছুরি বের করে পেছন থেকে আঘাত করে রাকিব।

পাভেল মাথা ঘুরিয়ে পাল্টা আক্রমণ করার চেষ্টা করে। তাৎক্ষণিকভাবে আবার আঘাত করে রাকিব। আঘাতটি তার হাতের আঙুলে লাগে। আঙুল কেটে যায়। এরমধ্যেই পাভেল মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। রক্তে ভিজে যায় রাকিবের শার্ট, হাত। পাশের পুকুরে নেমে হাত ও শার্ট ধুয়ে নেয়। ছুরিটি সেখানে ফেলে বাসায় গিয়ে শার্ট প্যান্ট ভিজিয়ে রাখে। তারপর নিজেই ছুটে যায় বিমানবন্দর থানায়। এভাবেই হত্যা করা হয় পাভেলকে। নিহত পাভেল ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিজয়নগর উপজেলার আব্দুল হকের ছেলে। তিনি রাজধানীর খিলক্ষেতের খাঁ পাড়া এলাকায় থাকতেন। কাজ করতেন পোশাক কারখানায়। পাভেল ও আল রাকিব মুন্সি দু’জনই রাজধানীর খিলক্ষেতের কাজী ফকির উদ্দিন রোডের খাঁ পাড়া এলাকায় বসবাস করতেন।

এ বিষয়ে ডিবি’র উপ-কমিশনার মশিউর রহমান বলেন, চাঞ্চল্যকর এই হত্যাকাণ্ডের আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার কাছ থেকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। বন্ধুকে খুন

বন্ধু,খুন,রাজধানী,খিলক্ষেত
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close