• মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৬ আশ্বিন ১৪২৮
  • ||

পরীমনির বাসা থেকে জব্দ গাড়ির মালিকানা যাচাইয়ের নির্দেশ

প্রকাশ:  ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:৫৪ | আপডেট : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:০০
নিজস্ব প্রতিবেদক

পরীমনিকে গ্রেপ্তারের সময় তার বাসা থেকে জব্দ করা গাড়ির মালিকানা যাচাই করতে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষকে (বিআরটিএ) নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। বুধবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সত্যব্রত শিকদার এই আদেশ দেন।

আদালতের সরকারি কৌঁসুলি হেমায়েত উদ্দিন খান হিরণ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আইনজীবী বলেন, বুধবার সকালে পরীমনির জব্দ করা সাদা রঙের গাড়িটি নিজের জিম্মায় নেওয়ার জন্য আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারক বিআরটিকে এ বিষয়ে মালিকানা সংক্রান্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।

শুনানিতে পরীমনির আইনজীবী নীলাঞ্জনা রিফাত বলেন, পরীমনির সাদা রঙের গাড়িটি জব্দ করা হয়েছে। গাড়ির ভেতর মালিকানাসংক্রান্ত কাগজপত্র ছিল। গাড়িটি নিয়ে যাওয়ায় কোনো কাগজপত্র পরীমনির কাছে নেই। এ জন্য গাড়ির মালিকানাসংক্রান্ত কাগজপত্র আদালতে জমা দেওয়া সম্ভব হয়নি।

আইনজীবী আরো বলেন, গ্রেপ্তারের সময় পরীমনির আইপ্যাড, মোবাইল ফোনসহ অন্যান্য জিনিসপত্রও জব্দ করা হয়েছে। এসব প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র না থাকায় পরীমনি এখন নানান সমস্যায় পড়ছেন। বিশেষ করে গাড়ি না থাকায় তিনি নিরাপত্তা ও হুমকির মধ্যে আছেন। মানবিক কারণে যেকোনো শর্তে তার জব্দ করা গাড়িটা ফেরত দেওয়া হোক।

এরপরে পরীমনির আবেদনের বিপক্ষে সরকারি কৌঁসুলি হেমায়েত উদ্দিন খান হিরণ বলেন, ‘মাননীয় আদালত, গাড়ির মালিকানা যাচাই ছাড়া জিম্মায় কীভাবে দেওয়া সম্ভব। যেহেতু পরীমনি ও তার আইনজীবী বলছেন, গাড়িসহ অন্যান্য জিনিসপত্রের মালিকানার কাগজপত্র নেই, তাই তার আবেদন নাকচ করা হোক।’

এর আগে পরীমনি বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার পর আদালত চত্বরে আসেন। জামিন পাওয়ার পর বুধবার ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রথম হাজিরা দেন পরীমনি। এ ছাড়া পরীমনিকে গ্রেপ্তারের পরে পুলিশ কিছু জিনিস জব্দ করেছিল। পরীমনি সেগুলো নিজের জিম্মায় নেওয়ার জন্যও আবেদন করেন।

গত ৪ আগস্ট রাতে প্রায় চার ঘণ্টার অভিযান শেষে বনানীর বাসা থেকে পরীমনি ও তার সহযোগী দীপুকে আটক করে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। এ সময় পরীমনির বাসা থেকে বিভিন্ন মাদক জব্দ করা হয়। পরদিন ৫ আগস্ট র‍্যাব-১ বাদী হয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পরী মণি ও তার সহযোগীর বিরুদ্ধে বনানী থানায় মামলা করে।

এরপর গত ৩১ আগস্ট ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালত পরীমনিকে জামিন দেন। পরের দিন তিনি গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগার থেকে জামিনে মুক্ত পান।

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

পরীমনি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close