• রোববার, ২০ জুন ২০২১, ৬ আষাঢ় ১৪২৮
  • ||

কণ্ঠশিল্পী নোবেলের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

প্রকাশ:  ০২ জুন ২০২১, ১২:১৮ | আপডেট : ০২ জুন ২০২১, ১৪:১৯
নিজস্ব প্রতিবেদক

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে হেয় প্রতিপন্ন করে স্ট্যাটাস দেওয়ার অভিযোগে সমালোচিত তরুণ গায়ক মঈনুল আহসান নোবেলের বিরুদ্ধে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলা করেছেন জনপ্রিয় গীতিকার, সুরকার ও সংগীত পরিচালক ইথুন বাবু।

বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালে বিচারক আসসামছ জগলুল হোসেনের আদালতে বুধবার (২ জুন) ইথুন বাবু বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

এ বিষয়ে ইথুন বাবুর আইনজীবী ফারুক আহম্মেদ বলেন, ‘বিচারক বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে মামলা আমলে নেওয়ার বিষয়ে আদেশ পরে দেবেন বলে জানিয়েছেন।’

আইনজীবী ফারুক আহম্মেদ আরো জানান, এ মামলায় নোবেলের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আবেদন করেছেন ইথুন বাবু।

নথি থেকে জানা গেছে, ‘নোবেল ম্যান’ নামের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে আসামি কণ্ঠশিল্পী নোবেল বাদী ইথুন বাবুসহ দেশের স্বনামধন্য শিল্পীদের বিরুদ্ধে নানা প্রকার কটূক্তিসহ জীবননাশের হুমকি দিয়ে আসছেন এবং বিভিন্ন কুৎসামূলক বক্তব্য প্রদান করছেন।

আরো জানা যায়, এরই ধারাবাহিকতায় আসামি নোবেল তার ফেসবুক আইডি থেকে বাদী ইথুন বাবুর সম্পর্কে উল্লেখ করেন, ‘ইথুন বাবু একটা চোর। অন্যের গান নিজের নামে চালিয়ে দিসে।’

এ বিষয়টি বাদী ইথুন বাবুর ভক্ত-শ্রোতা, আত্মীয়স্বজন ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা দেখতে পেয়ে বাদীকে অবগত করেন। এরপর গত ২০ মার্চ বাদীর (ইথুন বাবু) বাসায় ভক্ত-শ্রোতা ও স্বাক্ষীরা এলে বাদী আসামির আইডি দেখে বিষয়টি ভালোভাবে অবগত হন যে, আসামি তাঁর প্রতি বিরূপ লেখালেখি করেছে। ফেসবুকে ওই পোস্ট দেওয়ার কারণে অনেকেই আজেবাজে মন্তব্যও করেছেন। এ ছাড়া এ বিষয়ে বিভিন্ন প্রিন্ট মিডিয়ায় এবং আসামির বিষয়ে টেলিভিশনে টকশোতে আলোচনাও চলছে।

নথি থেকে আরো জানা যায়, আসামি নোবেল সময় টিভির উপস্থাপকসহ বিভিন্ন ব্যক্তিদের আজেবাজে মন্তব্য এবং কয়েকজন সাংবাদিককে হুমকি প্রদান করেছেন। এ কারণে বাদী বিষয়টি নিয়ে ভক্ত-শ্রোতা ও আর্জিতে বর্ণিত সাক্ষীদের সঙ্গে আলোচনা করে হাতিরঝিল থানায় মামলা করতে যান। কিন্তু, থানা কর্তৃপক্ষ মামলা গ্রহণ না করে সাধারণ ডায়েরি করতে বলেন।

আরো জানা গেছে, আসামি নোবেল তার ভেরিফায়েড পেজ অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে, বাদীকে অপদস্থ এবং তার ভেরিফায়েড পেজ অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে বাদীকে অপদস্থ করার জন্যই ষড়যন্ত্রমূলকভাবে উপর্যুক্ত বক্তব্য প্রচার করেছেন।

ইথুন বাবু বলেন, ‘আমার দীর্ঘ সংগীত ক্যারিয়ারে যে কথা কেউ কোনোদিন বলতে পারেনি নোবেল আমাকে সেই কথা বলেছে। আমি নাকি চোর? আমার মেয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়েছে। ছেলে এমবিএ করছে। শ্রোতা-ভক্তসহ সারাদেশে সংগীত এবং সংগীতের বাইরে আমার অসংখ্য বন্ধু-শুভাকাঙ্ক্ষী আছেন। নোবেলের স্ট্যাটাসের কারণে সবার কাছে আমার সম্মানহানি হয়েছে। তাই আমি এর সুষ্ঠু বিচারের জন্য আইনের আশ্রয় নিয়েছি, থানায় জিডি করার পর এবার জজ কোর্টে মামলাটি করেছি।’

তিনি আরো বলেন, ‘একজন শিল্পী মাস্তান হতে পারে না। শিল্পীর মনোভাব কখনও এমন হয় না। নোবেল নিজেই তাকে শিল্পী নয়, ক্যাডার বলে আখ্যায়িত করেছে। তার ভয়েস মেসেজটি সবার মাঝে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে। সাংবাদিকদের সে তুলে নিয়ে যাবে, আমাদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করবে- তা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না।’

পূর্বপশ্চিমবিডি/জিএস

নোবেল,ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close