• সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১১ কার্তিক ১৪২৭
  • ||

ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ: সাইফুল-নাজমুল রিমান্ডে

প্রকাশ:  ১২ অক্টোবর ২০২০, ১৭:৪৮ | আপডেট : ১২ অক্টোবর ২০২০, ২০:০৮
নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্রী ধর্ষণ ও ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের দুই নেতাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দু’দিন করে রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত।

সোমবার (১২ অক্টোবর) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোর্শেদ আল মামুন ভূঁইয়া এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রিমান্ডে যাওয়া দু’জন হলেন- বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. সাইফুল ইসলাম ও সংগঠনের ঢাবি শাখার সহ-সভাপতি মো. নাজমুল হুদা।

সোমবার দুপুরে এ দু’জনকে আদালতে হাজির করে কোতয়ালী থানার মামলায় সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। শুনানি শেষে বিচারক প্রত্যেকের দু’দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে মামলার এজাহারভুক্ত এ দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের লালবাগ বিভাগ।

রোববার (১১ অক্টোবর) রাতে রাজধানীর মগবাজার ও আজিমপুরে অভিযান চালিয়ে এজাহারভুক্ত ওই দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানায় ডিবি।

বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে বলেও জানায় ডিবি পুলিশ।

এদিকে সোমবার দুপুরে রাজধানীর শাহবাগে নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার ও গুমের প্রতিবাদে এবং আটককৃতদের মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ কর্মসূচি পালন করেন ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতাকর্মীরা।

এসময় পরিষদের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক রাশেদ খান বলেন, আমাদের সংগঠনের চারজন নেতাকে ডিবি পরিচয়ে আটক করা হয়েছে। পুলিশ আটক করেছে সেটাও স্বীকার করেনি, তাহলে তারা কোথায়? বাংলাদেশের মতো একটা রাষ্ট্রে এমন নিষ্ঠুর কাজ কখনো কাম্য নয়। স্বাধীন দেশ বলা হলেও আমরা প্রকৃতপক্ষে স্বাধীন নয়। অবিলম্বে নেতাকর্মীদের আমাদের কাছে পৌঁছে দিন, এমন হীন কাজে মেতে উঠবেন না।

রাশেদ খান বলেন, আমাদের পুলিশ-প্রশাসনের সবাই খারাপ না। অনেক মানবিক পুলিশ দেখি। কিন্তু গুম, খুন, নির্যাতনের সঙ্গে যারা জড়িত আমরা তাদের সমালোচনা করতেই পারি। এটা আমাদের সাংবিধানিক অধিকার। আমাদের পুলিশবিদ্বেষী ভাববেন না, আমাদের সুন্দর বাংলাদেশ গঠনে সহযোগিতা করুন।

গত ২০ সেপ্টেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই শিক্ষার্থী লালবাগ থানায় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুনকে (২৮) প্রধান আসামি করে ছয় জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

মামলার অপর আসামিরা হলেন- ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক নাজমুল হাসান সোহাগ (২৮), বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. সাইফুল ইসলাম (২৮), বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের সভাপতি নাজমুল হুদা (২৫) এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহিল বাকি(২৩)।

পর ২১ সেপ্টেম্বর বাদী কোতোয়ালি থানায় একই অভিযোগে আরেকটি মামলা দায়ের করেন।

গত মঙ্গলবার (৭ অক্টোবর) লালবাগ থানায় হওয়া ধর্ষণ মামলার প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য ছিল। তবে প্রতিবেদন দাখিল না হওয়ায় আদালত ২৭ অক্টোবর প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য করেছেন।

পূর্বপশ্চিমবিডি/জেডআই

বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close