Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ৪ কার্তিক ১৪২৬
  • ||

আনসার সদস্য হত্যা মামলায় তিন ছিনতাইকারীর মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশ:  ০৯ অক্টোবর ২০১৯, ১৬:৩৫
আদালত প্রতিবেদক
প্রিন্ট icon

১৭ বছর আগে রাজধানীর শ্যামলীতে কর্তব্য পালনকালে ছিনতাইকারীদের গুলিতে আনসার সদস্য ফজলুল হক হত্যা মামলায় তিনজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত।

বুধবার (৯ অক্টোবর) ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান এ দণ্ডাদেশ প্রদান করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- পাপ্পু ওরফে অন্তু (পলাতক), তারিকুর রহমান ওরফে শিবলী হোসেন ওরফে উজ্জল (পলাতক) এবং শুক্কুর আলী ওরফে সোহেল।

মৃত্যুদণ্ডের পাশাপাশি শুক্কুর আলীকে আরেক ধারায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অনাদায়ে তাকে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ২০০২ সালের ১৩ মার্চ সকাল পৌনে ৮টা থেকে ২টা পর্যন্ত রাজধানীর শ্যামলীর ২ ও ৩ নম্বর রোডে দায়িত্ব পালন করছিলেন আনসার সদস্য আব্দুল জলিল ফরাজী ও ফজলুল হক। বেলা পৌনে ১টার দিকে ৩নং রোডের মাথায় কনস্টেবল আকমান হোসেন গুলির শব্দ শুনতে পেয়ে এগিয়ে আসেন। এসে দেখতে পান ফজলুল হক মাটিতে পড়ে আছে আর জলিল ফরাজী ছিনতাইকারীদের সাথে ধস্তাধস্তি করছে। এসময় ছিনতাইকারীরা রিভলবার দিয়ে আকমান হোসেনকে গুলি করে। জবাবে আকমানও তার শর্টগান দিয়ে এক রাউন্ড গুলি চালান। পরে ছিনতাইকারীরা আব্দুল জলিল ফরাজীকে গুলি করে দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে ফজলুল হককে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় আকমান হোসেন বাদি হয়ে ওই দিন মোহাম্মদপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলার তদন্তকারী এসআই নূরে আলম তদন্ত শেষে ২০০৩ সালের ৩১ মার্চ আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। এরপর ২০০৪ সালের ১০ জানুয়ারি আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করে বিচার শুরু হয়।

আদালত মামলাটির বিচার কাজ চলাকালে চার্জশিটভুক্ত ১৫ সাক্ষীর মধ্যে আটজনের সাক্ষ্য প্রমাণ গ্রহণ শেষে এ আদেশ দেন।

রাষ্ট্রপক্ষে স্পেশাল পিপি মো. আবু আব্দুল্লাহগ ভূঞা এবং আসামিপক্ষে এ্যাডভোকেট মনির হোসেন মারুফ মামলা পরিচালনা করেন।

পূর্বপশ্চিমবিডি/পিআই

আনসার সদস্য হত্যা মামলা,মৃত্যুদণ্ড
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত