Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬
  • ||

অবৈধ সম্পদ অর্জন

এ্যানির মামলা ৬ মাসের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ

প্রকাশ:  ১৪ মে ২০১৯, ১৫:২১
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট icon
শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি। ফাইল ছবি

জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে বিএনপির কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ও লক্ষীপুর-৩ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানির বিরুদ্ধে দুদকের দায়ের করা মামলা বাতিল প্রশ্নে করা রুল খারিজ করেছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করে বিচারিক আদালতকে ছয় মাসের মধ্যে মামলা নিষ্পত্তির নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৪ মে) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

এ সংক্রান্ত রুল খারিজ হওয়ায় মামলাটি চলতে এখন আইনগত কোনো বাধা নেই বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

আদালতে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক এবং আসামিপক্ষে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী জয়নুল আবেদীন।

দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান বলেন, ২০১৬ সালের ১ সেপ্টেম্বর এ্যানির আবেদনে হাই কোর্ট মামলার কার্যক্রম স্থগিত করার পাশাপাশি কেন মামলাটি বাতিল করা হবে না, তা জানতে রুল জারি করেছিল। সে রুলটিই আজ খারিজ করে দিয়েছে আদালত। একইসঙ্গে স্থগিতাদেশ তুলে নিয়ে ছয় মাসের মধ্যে মামলাটি নিষ্পত্তি করতে নির্দেশ দিয়েছেন।

২০১৪ সালের ৯ অক্টোবর শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে দুদক। রাজধানীর রমনা থানায় মামলাটি করেন দুদকের উপ-পরিচালক মো. মঞ্জুর মোর্শেদ।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি দুদকে দাখিলকৃত সম্পদ বিবরণীতে ১৩ লাখ ১৩ হাজার ৯৪০ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করেছেন। এছাড়া দুদকের অনুসন্ধানে তার বিরুদ্ধে মোট ১ কোটি ৪০ লাখ ৪২ হাজার ৬৭০ টাকার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের প্রমাণ পাওয়া গেছে।

তথ্য গোপনের বিষয়ে মামলার এজাহারে বলা হয়, জমি ক্রয়ে রেজিস্ট্রেশন ফি বাবদ ৩ লাখ ১৩ হাজার ৯৪০ টাকা এবং লক্ষীপুরের কুশখালীতে তার নামে স্কুলে অনুদান বাবদ ১০ লাখ টাকাসহ মোট ১৩ লাখ ১৩ হাজার ৯৪০ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করেছেন তিনি, যা দুদক আইন-২০০৪-এর ২৬ (২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

অন্যদিকে জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের বিষয়ে জানা যায়, এ্যানির দেয়া তথ্য অনুসারে স্থাবর-অস্থাবর ও অপ্রদর্শিত সম্পদ মিলিয়ে মোট ৩ কোটি ৭৫ লাখ ৩৫ হাজার ২৬৬ টাকার সম্পদের মালিকানা অর্জন করেছেন। যার মধ্যে দায় হিসেবে ৫০ লাখ টাকা দেখিয়েছেন। অর্থাৎ দায় বাদ দিলে তার নিট সম্পদের পরিমাণ হয় ৩ কোটি ২৫ লাখ ৩৪ হাজার ২৫৭ টাকা। যেখানে ২০১৩ সালের ৩০ জুনে দেয়া সম্পদ বিবরণী অনুসারে তার ১ কোটি ৭৬ লাখ ৯১ হাজার ৫৮৭ টাকার সম্পদের তথ্য পাওয়া গেছে।

পরে ২০১৬ সালের ২৪ মে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত এ্যানির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। সে অভিযোগ গঠন আদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে ফৌজদারি রিভিশন করা হয়। এরপর একই বছরের ১ সেপ্টেম্বর হাইকোর্ট বিচারিক আদালতে থাকা মামলাটির কার্যক্রম ৬ মাসের জন্য স্থগিতসহ মামলার দায় হতে দরখাস্তকারীকে কেন অব্যাহতি দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছিলেন।


পিপিবিডি/এসএম

শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি,হাইকোর্ট,আদালত
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত