• মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
  • ||

অবশেষে ক্যাম্পাসে রাব্বানীর দেখা মিললো

প্রকাশ:  ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০১:৩০
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতির পর গোলাম রাব্বানী একমাসের বেশি সময় অন্তরালে ছিলেন। ডাকসু’র নির্বাচিত এই জিএসকে দেখা যায়নি কোথাও। এমনকি ডাকসুর নিয়মিত সভা ও কর্মসূচিতেও তিনি ছিলেন অনুপস্থিত। আর্থিক নানা অনিয়মে অভিযুক্ত ছাত্রলীগের এ নেতাকে দীর্ঘদিন পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে দেখো গেল।

বুধবার ( ১৭ অক্টোবর) বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) পায়রা চত্বরে ডাকসু আয়োজিত সাইকেল সেবা ‘জোবাইক’-এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দেন গোলাম রাব্বানী।

মেয়াদপূর্তির আগে নানা অনিয়মে জড়িত থাকায় ছাত্রলীগ থেকে অব্যাহতির পর গোলাম রাব্বানীকে ডাকসুর সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকেও সরিয়ে দেওয়ার দাবি ওঠেছিল। এরপরে কার্যত লোকচক্ষুর আড়ালে চলে যাওয়া রাব্বানী গত ২৬ সেপ্টেম্বর ডাকসুর কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকেও ছিলেন না। ওই বৈঠকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত হয়।

ছাত্রলীগের পদ হারানোর পর গোলাম রাব্বানীকে ডাকসু জিএস পদ থেকে স্বেচ্ছায় সরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন নুরুল হক নূর।সাইকেল সেবা ‘জোবাইক’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নূরুর পাশের আসনে ছিলেন জিএস রাব্বানী। অন্যপাশে ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান।

অনুষ্ঠান চলাকালে নূরের সঙ্গে বেশ অন্তরঙ্গভাবে কথা বলতে দেখা যায় ছাত্রলীগের সাবেক এই সাধারণ সম্পাদককে। যদিও আওয়ামী লীগ নেতৃত্ব রাব্বানীর কাছ থেকে দায়িত্ব কেড়ে নেওয়ার পর ভিপি নূর বলেছিলেন, ডাকসুর সাধারণ সম্পাদক পদে থাকার ‘নৈতিক অধিকার হারিয়েছেন’ জিএস গোলাম রাব্বানী।ওই সময় থেকেই অনেকটা আত্মগোপনে ছিলেন তিনি। অনুষ্ঠান ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা গোলাম রাব্বানীকে বেশ সাদরেই গ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার পর সাংবাদিকদের এড়িয়ে খুব দ্রুত টিএসসির পায়রা চত্বর এলাকা ছাড়েন তিনি।

এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে অ্যাপভিত্তিক বাইসাইকেল শেয়ারিং সেবা জোবাইক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে তাদের কার্যক্রম শুরু করছে। জোবাইকের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান মেহেদী রেজা বলেন, আমরা কিছুটা ভিন্ন আঙ্গিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সেবাটি শুরু করছি।এখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান শিক্ষার্থী নয়, এমন কেউ সেবাটি ব্যবহার করতে পারবেন না। সেবাটির নিবন্ধনও করতে হবে বর্তমান পরিচয়পত্র দিয়েই। শিক্ষার্থী, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারী ব্যতীত কেউ জোবাইক ব্যবহার করতে পারবে না এখানে। এমনকি অন্য কোথাও নিবন্ধন থাকলেও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় সেটি ব্যবহার করতে পারবে না।

তিনি আরো বলেন, অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সীমানা একটা নির্দিষ্ট জায়গায় নেই। এটা কিছুটা ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। ফলে আমাদের সেই দিকটি মাথায় রেখেই এর পরিকল্পনা সাজাতে হচ্ছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে জোবাইক নতুন একটা প্রাইসিং আনার কথাও ভাবছি। যা অন্তত তিন মাস পরীক্ষামূলক চালাবে জোবাইক।

পূর্বপশ্চিমবিডি

গোলাম রাব্বানী,ডাকসুর জিএস
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত