Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ৪ কার্তিক ১৪২৬
  • ||

ম্যাসেঞ্জার গ্রুপে আবরারকে নির্যাতনের নির্দেশ দেন রবিন

প্রকাশ:  ১০ অক্টোবর ২০১৯, ২০:১৪
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট icon

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে শেরেবাংলা হলের ২০১১ নম্বর রুমে পেটানোর পরিকল্পনা হয় আগেই। এ বিষয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া গেল বুয়েট ছাত্রলীগের সিক্রেট মেসেঞ্জার গ্রুপ থেকে।

ঘটনার একদিন আগেই বুয়েট ছাত্রলীগের সিক্রেট মেসেঞ্জার গ্রুপে খুনিদের যে ককথোপকথন হয় সেখানে আবরারকে পিটিয়ে হল থেকে বের করে দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছিল।

সেইসঙ্গে ঘটনার একজন প্রত্যক্ষদর্শীর বর্ণনায়ও উঠে এসেছে লোমহর্ষক সেই ঘটনা।

আবরার হত্যার আগের দিন (৫ অক্টোবর) শনিবার দুপুর পৌনে একটায় সিক্সটিন ব্যাচকে মেনশন করে সেই সিক্রেট গ্রুপে রবিন লেখেন, সেভেন্টিনের আবরার ফাহাদকে মেরে হল থেকে বের করে দিবি দ্রুত। ২ দিন টাইম দিলাম।

পরদিন রোববার রাত ৭টা ৫২ মিনিটে সবাইকে হলের নিচে নামার নির্দেশ দেন মনিরুজ্জামান মনির। রাত ৮টা ১৩ মিনিটে আবরারকে নিজ কক্ষ থেকে ডেকে করিডোর দিয়ে দোতলার সিঁড়ির দিকে নিয়ে যান সাদাত, তানিম, বিল্লাহসহ কয়েকজন।

এরপর রাত ১টা ২৬ মিনিটে ইফতি মোশাররফ সকাল ম্যাসেঞ্জারে লেখেন, মরে যাচ্ছে, মাইর বেশি হয়ে গেছে।

ইতিমধ্যে চ্যাটিংয়ের এসব ম্যাসেজ সামাজি যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

এদিকে আবরার হত্যাকাণ্ডের সেই ১৫ মিনিটের ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, সেদিন রাত ১২টা ২৩ মিনিট ৫৪ সেকেন্ডে আশিকুল ইসলাম বিটু ২০১১ নম্বর রুমের দিকে হেঁটে যাচ্ছেন। এর প্রায় ৭ মিনিট পর তিনি বেড়িয়ে যান। কী ঘটেছিল শেরে বাংলা হলের ২০১১ নম্বর রুমের ভেতরে ওই রাতে এ প্রশ্ন করা হয় আশিকুল ইসলাম বিটুকে।


পূর্বপশ্চিমবিডি/কেএম

আবরার হত্যা,রবিন
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত