Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬
  • ||

কুবিতে ছিনতাই ও মাদকের আড্ডার আসর

প্রকাশ:  ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১৪:৪৪
কুবি প্রতিনিধি
প্রিন্ট icon

প্রতিষ্ঠার ১৩ বছরেও কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করা হয়নি। যার ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সীমানার ভিতরে ছিনতাই, মাদক সেবনের আড্ডার আসর ও নানা অপরাধমূলক কাজে ব্যবহার করছে বহিরাগতরা।

বিশ্ববিদ্যালয়ে সীমানা প্রাচীর প্রতিষ্ঠা না করা ও নিরাপত্তা না থাকায় হতাশ শিক্ষার্থীরা।

সরেজমিনে দেখা যায়, ব্যবসায় শিক্ষা ভবনের পিছন থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠের ডান পাশ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল পর্যন্ত নেই তেমন কোন সীমানা প্রাচীর। ফলে নিরাপত্তাকর্মী থাকলেও সীমানা প্রাচীর না থাকায় ক্যাম্পাসের ভিতরে ছিনতাই, মাদকের আড্ডার আসর হরহামেশাই ঘটছে।

গত ২৩ই আগস্ট রাত আট টায় অর্থনীতি বিভাগের ১২ ব্যাচের শিক্ষার্থী রাশেদুল আলম সিফাত ও তাঁর বান্ধবী ক্যাম্পাসের ভিতরে ছিনতাইয়ের শিকার হয়। বহিরাগত একদল সন্ত্রাসী অস্ত্র দেখিয়ে সিফাতের মোবাইল ও টাকা ছিনতাই করে নিয়ে যায়। এর আগেও নানা সময় বহিরাগতদের দ্বারা ছিনতাই এর কবলে পড়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে অন্তত চারজনের মতো শিক্ষার্থী বলেন, ‘কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস এখন বহিরাগত সন্ত্রাসী ও মাদকসেবীদের জন্য সবচেয়ে নিরাপদ স্থান। ক্যাম্পাসের মধ্যেই চলে মাদক সেবন ও কেনাবেচা। এ বিষয়গুলো বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের নজরে বারবার দেয়া হলেও তেমন কোন ব্যবস্থা না নেওয়ায় ছিনতাই লাঞ্ছনার মতো ঘটনাগুলো ঘটছে। যেখানে নিরাপত্তা জোড়ালো হওয়ার কথা সেখানেই নিরাপত্তার অভাব। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির নিরাপত্তার বিষয়ে তেমন কোন পদক্ষেপ নেই বললেই চলে।’

রাতের আড়ালে বিশ্ববিদ্যালয়ে বহিরাগতদের চলে মাদকের আড্ডার আসর। বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ ও সীমানা প্রাচীরের পাহাড়গুলোতে বসে মাদকের আড্ডার আসর। সম্প্রতি বহিরাগতরা বিশ্ববিদ্যায়ের শহীদ মিনারে মাদক সেবনে আসক্ত এমন ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

এছাড়া সীমানা ঘেঁষে দাঁড়িয়ে থাকা পিলারগুলো দীর্ঘদিন ঠিকমত দেখভাল না করার কারণে উধাও হয়ে গেছে কাঁটাতারগুলো। সেই সুবাদে অবাদে চলাফেরা করছে বহিরাগতরা।

সীমানা প্রাচীর নির্মাণ ও বহিরাগত মাদকসেবী ও ছিনতাইকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে কি-না জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রফেসর ড. মো: আবু তাহের বলেন, ‘মাদক সেবনকারী ও ছিনতাইকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট আইন শৃংখলা বাহিনীকে অবহিত করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থী কেউ জড়িত থাকলে পুলিশ ধরে নিয়ে গেলে আমাদের কোন বাঁধা থাকবেনা। নতুন প্রকল্প পাশ করিয়ে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করা হবে বলে জানান তিনি।

পূর্বপশ্চিমবিডি/আরএইচ

কুবি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত