Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • রোববার, ২৬ মে ২০১৯, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
  • ||

‘ডোপ টেস্ট’ করে কমিটিতে পদায়নের আহ্বান জাবি ছাত্রলীগ নেতার

প্রকাশ:  ১৬ মে ২০১৯, ১৪:২৪
জাবি প্রতিনিধি
প্রিন্ট icon

আসন্ন পূর্ণাঙ্গ কেন্দ্রিয় কমিটি ‘মাদকমুক্ত’ করতে পদপ্রত্যাশী প্রত্যেক ছাত্রলীগের নেতাকর্মীকে ‘ডোপ টেস্ট’ করে নবগঠিত কমিটিতে স্থান দিতে আহ্বান জানিয়েছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মুরশিদুর রহমান আকন্দ।

তিনি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের গত কমিটির সদস্য ছিলেন। এ বছর কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কমিটিতে পদপ্রত্যাশী ছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বঞ্চিত হয়েছেন আকন্দ। এ নিয়ে ইতোমধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও হতাশা প্রকাশ করেছেন তিনি।

সোমবার (১৩ মে) তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এক পোস্ট দিয়ে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের প্রতি এই আহ্বান জানান।

সবিনয় অনুরোধ শ্রদ্ধেয় সভাপতি সাধারণ সম্পাদক ভাই আপনাদের প্রতি:- ইতিহাস আর ঐতিহ্যে ত্যাগ তিতীক্ষার স্বপ্নের বাস্তবায়নে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে রুদ্দুর পথে চলা ছাত্রলীগ আজ দেশরত্ন শেখ হাসিনার পথকে মসৃণ রাখতে কাজ করে চলেছে। তাই বর্তমান সময়ে মমতাময়ী মা দেশরত্ন শেখ হাসিনার উন্নয়ন অগ্রযাত্রা ও সাধারণ মানুষের সার্বিক নিরাপত্তা বাংলাদেশ ছাত্রলীগের আরও গুরুত্বপূর্ণ প্রত্যক্ষ ভূমিকা প্রয়োজন বলে মনে করি। আর সেজন্য আমাদের প্রত্যেক ছাত্রলীগ নেতাকর্মীকে শারীরিক ও মানসিক দিক থেকে সাবলীল ও সুন্দর হতে হবে। আমি বিশ্বাস করি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রত্যেক নেতাকর্মী এ দু দিক থেকেই সাবলীল ও সুন্দর মনের মানুষ।

একজন নগণ্য কর্মী হিসেবে বিশ্বাস করি, “বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কথা ও কাজে বিশ্বাসী যখন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ শুধুমাত্র দেশরত্ন শেখ হাসিনাকে বুঝে ও ধারণ করে কাজ করে।”

তাই বর্তমান সময়ে মানবতার মা শেখ হাসিনা প্রতিটি পরিবারে, সমাজে শান্তি সুনিশ্চিতকরণে মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন। কারণ একটাই একটি সুখী পরিবার, সমাজ এবং উন্নত সমৃদ্ধ শান্তিপূর্ণ বসবাসযোগ্য দেশ। আর এমন দেশ বিনিমার্ণ কাজ করে চলেছে কালজয়ী সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। তাই হতে যাওয়া নবগঠিত কমিটিতে প্রত্যেক নেতাকর্মী হবে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বিনিমার্ণে সোনার মানুষ। তাই আমার অনুভূতির প্রিয় সংগঠনের সভাপতি ও রাজনীতিতে পোড় খাওয়া আজকের সফল সাধারণ সম্পাদক ভাই আপনাদের প্রতি সদয় অনুরোধ, আসন্ন কমিটিতে আমাদের প্রত্যেক নেতাকর্মীকে ডোপ টেস্ট সুনিশ্চিতকরণ পূর্বক নবগঠিত কমিটিতে স্থান দিয়ে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বিনির্মাণে দেশরত্ন শেখ হাসিনার সুনামকে অক্ষুণ্ণ রাখতে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে আশা করি।

মাদকমুক্ত বাংলাদেশ ছাত্রলীগ আজ দেশমাতৃকার জন্য সময়ের দাবি। আর এটার বাস্তবায়ন হলে ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, শহর, উপজেলা, জেলা প্রত্যেকটি ইউনিট হবে মাদকমুক্ত। যখন সুস্থ মস্তিষ্কে কাঙ্খিত লক্ষ্য অর্জনে দেশরত্নের ছাত্রলীগ হবে কালজয়ী ও আস্থার জায়গা। যখন আমাদের প্রাণপ্রিয় নেত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রলীগ নিয়ে বিব্রত হবেন না বরং বলবেন, ‘‘আমি ছাত্রলীগের সাথেই একমাত্র প্রাণখুলে কথা বলতে পারি।’’ হ্যা, মমতাময়ী মা আমরাও আপনার সন্তানরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষারত প্রাণখুলে আপনার বলা কথাগুলো শুনবার জন্য।

আমি জানি এবং বিশ্বাস করি বাংলাদেশ ছাত্রলীগে মাদকসেবীর সংখ্যা নেই। কিন্তু জাতির পিতার আদর্শের সৈনিকদের পরীক্ষার অন্ত নেই! সেজন্য আমাদের একজনও কোন দোষ করলে এর দায়ভার পুরো সংগঠনকই যেমন নিতে হয় তেমনি আমার নেত্রীকেও হতে হয় বিব্রত!!!

তাই একজন নগণ্য কর্মীর সবিনয় আবেদন এবং করজোড়ে অনুরোধ, কালজয়ী সংগঠনের কালজয়ী নেতৃত্ব নির্বাচনে আপনারা ইতিহাসের পাতায় অনন্য কালজয়ী সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হতেই দয়া করে ডোপ টেস্ট পূর্বক নবগঠিত কেন্দ্রীয় কমিটি করে মমতাময়ী মা কে মাদকমুক্ত বাংলাদেশ ছাত্রলীগ উপহার দিবেন।

আমার লেখাটি ব্যক্তিগতভাবে কাউকে আক্রমণের জন্য না বরং আমার সংগঠন ও প্রাণপ্রিয় নেত্রীর জন্য। একটি সুন্দর শান্তিপূর্ণ দেশের জন্য যেখানে সুস্থ স্বাভাবিক চিন্তা করে দেশকে এগিয়ে নিতে তরুণ্যের অদম্য মেধার প্রয়োজন অনস্বীকার্য। তাই যদি কোনভাবে কেউ ব্যথিত হোন ক্ষমা করে দিবেন।

পিপিবিডি/আরএইচ

জাবি
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত