• শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ৪ আষাঢ় ১৪২৮
  • ||
শিরোনাম

‘অক্সিজেনের অভাবে করোনা রোগীর মৃত্যু গণহত্যার শামিল’

প্রকাশ:  ০৫ মে ২০২১, ১১:২৯ | আপডেট : ০৫ মে ২০২১, ১১:৫৯
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত রোগীদের শুধুমাত্র অক্সিজেনের অভাবে মৃত্যু গণহত্যার শামিল বলে মন্তব্য করেছেন ভারতের উত্তরপ্রদেশ এলাহাবাদ হাইকোর্ট। এই ধরনের ঘটনা আইনত অপরাধ হিসেবেও উল্লেখ করা হয়। একইসঙ্গে বিষয়টি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

ভারতের রাজধানী দিল্লিসহ বিভিন্ন রাজ্যের হাসপাতালগুলোতে অক্সিজেনের অভাব দেখা দিয়েছে। আর আক্সিজেনের অভাবে সেখানে মানুষের মৃত্যরও খবর পাওয়া যাচ্ছে। এমন পরিস্থিতি দেশটিতে সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা রেকর্ড পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য মতে, দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩ লাখ ৮২ হাজার ৩১৫ জন করেনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এতে করে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ কোটি ৬ লাখ ৬৫ হাজার ১৩৫ জনে দাঁড়িয়েছে। আর গত একদিনে মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৭৮০ জনের। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা ২ লাখ ২৬ হাজার ১৮৮ জনে দাঁড়িয়েছে।

ভারতের সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, মঙ্গলবার (৪ মে) এলাহাবাদের হাইকোর্টে জনস্বার্থে দায়ের করা এক মামলার শুনানিতে অংশ নিয়ে বিচারপতি সিদ্ধার্থ ভার্মা ও অজিত কুমারের বেঞ্চ প্রদেশটির মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ প্রশাসনের ভর্ৎসনা করে এসব মন্তব্য করেন।

এ বিষয়ে বিচাররা জানান, আমরা অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে লক্ষ্য করছি কীভাবে হাসপাতালগুলোতে অক্সিজেনের অভাবে করোনার রোগীদের মৃত্যু হয়েছে। এটা রীতিমতো আইনত অপরাধ এবং গণহত্যার থেকে কম কিছু নয়।

রীতিমতো ভর্ৎসনা করে বিচারপতিরা বলেন, কী করে আপনারা মানুষকে এভাবে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিতে পারেন, যেখানে বিজ্ঞান এত উন্নত হয়েছে? আধুনিক যুগে যেখানে হৃদযন্ত্র বা মস্তিষ্ক প্রতিস্থাপনও অনায়াসে করা যাচ্ছে।

লক্ষ্ণৌ বা মিরাটে অক্সিজেনের অভাবে করোনা রোগীদের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। এ বিষয়টি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন এলাহাবাদ হাইকোর্ট।

এ বিষয়ে বিচারকগণ বলেন, সাধারণত সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়ানো কোনো খবরকে ভিত্তি করে এই ধরনের নির্দেশ দেওয়া হয় না। কিন্তু যেহেতু জনস্বার্থে দায়ের হওয়া এই মামলাটিকে হালকাভাবে নেওয়ার কোনো অর্থ নেই। লক্ষ্ণৌ ও মীরাটের জেলাশাসকদের আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে এ বিষয়ে তদন্ত করে রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি এই মামলার পরবর্তী শুনানিতে তাদের হাজিরা দেওয়ারও নির্দেশ দেওয়া হয়।

আরো পড়ুন: ২৪ ঘণ্টাই জ্বলছে চিতা, তবুও শেষ হচ্ছে না লাশের সারি

ভারতের রাজধানী দিল্লির মতোই উত্তরপ্রদেশেও অক্সিজেনের ঘাটতি দেখা দিয়েছে। আর আক্সিজেনের অভাবে সেখানে মানুষের মৃত্যরও খবর পাওয়া যাচ্ছে। তবে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বলেন, এই অভিযোগগুলো একেবারেই ঠিক নয়। অক্সিজেন সরবরাহ, ওষুধপত্র ও হাসপাতালে বেডের অভাব নিয়ে যা শোনা যাচ্ছে তা ভিত্তিহীন। যদিও যোগী আদিত্যনাথের দাবির সঙ্গে বাস্তব চিত্রের কোনো মিল নেই।


পূর্বপশ্চিমবিডি/জিএস

ভারত,হাইকোর্ট
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close