• বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ৮ বৈশাখ ১৪২৮
  • ||

পশ্চিমবঙ্গে আরও শক্তিশালী মমতা

প্রকাশ:  ০৩ মার্চ ২০২১, ০২:৩৩
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে বামফ্রন্ট ও কংগ্রেসের জোট ত্যাগ করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল তৃণমূলকে সমর্থন জানিয়েছে রাষ্ট্রীয় জনতা দল (আরজেডি) ও সমাজবাদী পার্টি (এসপি)। উভয়ের মূল লক্ষ্য বিজেপিকে প্রতিহত করা। মঙ্গলবার (২ মার্চ) এই দুই দলের সমর্থন পাওয়ার মধ্য দিয়ে আরও শক্তিশালী হয়েছে তৃণমূল। বিহার ও উত্তরপ্রদেশে দল দুটি বিজেপি’র প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী। পশ্চিমবঙ্গেও দল দুটির উল্লেখযোগ্য সংখ্যক ভোট রয়েছে। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

পশ্চিমবঙ্গের ভোটের আগে এই লড়াইয়ে মমতাকে পূর্ণ সমর্থনের বার্তা স্পষ্ট করে দিয়েছেন আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব। এসপি’র অখিলেশ যাদবও ফোন দিয়ে মমতার প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করেছেন।

সোমবার নবান্নে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক করেন তেজস্বী যাদব। বৈঠকের পর সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘বিজেপি বিরোধী লড়াইয়ে যেভাবে চান, তৃণমূলের পাশে থাকব। সভ্যতা বাঁচাতে বিজেপিকে হঠাতেই হবে। তৃণমূলের লড়াই মানে আমাদের লড়াই।’

অন্যদিকে তেজস্বীকে ধন্যবাদ জানিয়ে পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন মমতাও। গতবার বিহারের নির্বাচনে তেজস্বীর মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার কথা থাকলেও বিজেপি কৌশলে সেই সম্ভাবনা নষ্ট হয়ে যায়। সে বিষয়ে ফের অভিযোগ তুললেন তৃণমূল প্রধান। যদিও তৃণমূল-আরজেডির মধ্যে কোনও আসন সমঝোতা হয়েছে কিনা তা নিয়ে কিছু বলেননি মমতা কিংবা তেজস্বী। তৃণমূলের প্রতি আরজেডি-র এ সমর্থন প্রত্যাশিতই ছিল।

গত রবিবার কলকাতায় পা রেখে আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব আভাস দিয়েছিলেন, ধর্মনিরপেক্ষতাকে সামনে রেখেই চলবে আরজেডি। এতে অনেকটা স্পষ্ট হয়ে যায় এবারের ভোটে তৃণমূলকে সমর্থন দিতে যাচ্ছে লালুপ্রসাদের দল।

তেজস্বীর বক্তব্য, ‘বাংলায় অনেক বিহারি থাকেন। আপনাদের সকলের কাছে আমার আহ্বান, সকলে মমতাদিদির পাশে থাকুন, তার হাত শক্ত করুন’।

অন্যদিকে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও বিহারের গত নির্বাচনী ফলের কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘ভোটের ফলে তো তেজস্বীই মুখ্যমন্ত্রী হতেন। কিন্তু কৌশলে তাকে কীভাবে বঞ্চিত করা হয়েছে, তা আমরা সবাই জানি। পরবর্তী নির্বাচনে তেজস্বী জয়ী হোক।’

পিপি/জেআর

মমতা
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close