• বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭
  • ||

বিশ্বের প্রথম সোনায় মোড়ানো হোটেল (ফটো স্টোরি)

প্রকাশ:  ০৯ জুলাই ২০২০, ২০:১৩ | আপডেট : ০৯ জুলাই ২০২০, ২০:২৫
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

সোনার খাঁচায় বন্দি হতে কেউ কি চাই? কেউই চাই না। কিন্তু যদি সুযোগ আসে সোনার ঘরে থাকার? তখন নিশ্চয় আপত্তি থাকার কথা না। প্রাচীনকাল থেকেই সোনা আভিজাত্যের এক অন্যতম প্রতীক। তা সে অলঙ্কারই হোক বা সোনা দিয়ে তৈরি অনান্য নানান চমকপ্রদ জিনিসে। আর তাই এই করোনার মধ্যেও মিডিয়ায় সাড়া ফেলে দিয়েছে ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ে সোনার প্লেটে বানানো হোটেল ডলচে হ্যানয় গোল্ডেন লেক। ছয় তারকা এই অভিজাত হোটেলের ইন্টেরিয়র এবং বাইরের কাজে ব্যবহার করা হয়েছে ২৪ ক্যারেটের সোনা।

সোনার পাতে পুরো হোটেল ছাড়াও হোটেলের টয়লেট সিট থেকে শুরু করে লবি, ইনফিনিটি পুল , রুম এমনকী বাথরুমের শাওয়ারও সোনা দিয়েই তৈরি করা হয়েছে। হোটেলে কোনও গেস্ট কফি খেতে চাইলে, তাকে সোনার কাপেই কফি পরিবেশন করা হবে।

থাকার খরচ নিয়ে ভাবছেন? এই প্রাচুর্যে থাকার খরচও তেমনই হবে, বুঝতেই পারছেন। বাইরের লন থেকে শুরু করে বাথ‍রুমের সিঙ্ক যেখানে সোনায় মোড়ানো, এই অভিজ্ঞতা পেতে এক রাতের জন্য ২৫০ ডলার বা ২০ হাজার টাকা খুব বেশি মনে হচ্ছে না।

তবে ডাবল বেডরুম স্যুটে একরাত থাকার খরচ ৭৫ হাজার টাকার কাছাকাছি। আর যদি ভিআইপি হোন, আর প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুটে থাকতে চান তাহলে খরচ কিন্তু প্রতি রাতের জন্য মাত্র পাঁচ লাখ টাকা!

২০০৯ সাল থেকে এ হোটেলের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। শনিবার এটি ব্যবসায়ের জন্য চালু করা হয়েছে। ভিয়েতনামের প্রসিদ্ধ হোয়া বিন গ্রুপ তৈরি করেছে এই হোটেলটি। আর ম্যানেজমেন্টের দায়িত্বে রয়েছে আমেরিকান সংস্থা উইনধাম হোটেল গ্রুপ।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, মনোবিদ বিশেষজ্ঞরা তাদের জানিয়েছিলেন, চারপাশে সোনার ঝলক ‘কষ্ট’ ভুলিয়ে দেয়। যার পরই এ ভাবে হোটেল বানানোর কথা ভেবেছিলেন তারা। সোনার চামচ দিয়ে চিনি মিশিয়ে সোনার কাপের চায়ে চুমুক দিয়ে দিন শুরু করতে চাইলে প্লান করেই ফেলুন।

হোটেলের অনেক কিছুই ২৪ ক্যারেট সোনার পাত দিয়ে মোড়ানো। সুইমিং পুলের টাইলসও তাই।

সুইমিং পুলে কিছুক্ষণ সাঁতার কেটে পুলের পাশের স্নানাগারে একটু গোসল করে রুমে ফিরছেন এক নারী। স্নানাগারের প্রায় সব কিছুই সোনায় মোড়ানো।

এইমাত্র সুইমপিং পুলে গোসল সেড়েছেন এক নারী। সুইমিংপুলের মেঝের টাইলসও সোনায় মোড়ানো!

হোটেলের প্রত্যেকটি বাথটাবই সোনায় মোড়ানো।

হোটেলের সব কক্ষের বাথরুম দেখলেও অবাক হতে হয়। সেখানে সিঙ্ক, কমোড, এমনকি কমোডের ঢাকনাও সোনায় মোড়ানো।

হোটেলটির এই স্নানাগারের সবগুলো সি্ঙ্ক তো বটেই, এমনকি পানির পাইপও সোনায় মোড়ানো।

সব বাথরুমের মতো এই বাথরুমের সিঙ্কও সোনায় মোড়ানো।

করিডোরে দাঁড়িয়ে এক কর্মী। সোনায় মোড়ানো বলে পুরো করিডোরেই ছড়িয়ে পড়েছে সোনালি আভা।

খুব ছোট, ছিমছাম শোয়ারের পাশেই রয়েছে আধুনিক সব সুব্যবস্থাসম্পন্ন গোসলখানা।

ডোলস হ্যানয় গোল্ডেন লেক লাক্সারি হোটেলের এই অংশের ছাদ এবং দেয়ালেও সোনার প্রলেপ।

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

ভিয়েতনাম,হোটেল
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close