• রোববার, ০৫ জুলাই ২০২০, ২১ আষাঢ় ১৪২৭
  • ||

আমরা আক্রান্ত হলে ভাইরাস আপনাদের দেহেও ঢোকাব, ডাক্তারদের হুমকি

প্রকাশ:  ২৪ এপ্রিল ২০২০, ১৪:৪৪
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

জীবন না জীবিকা, কোনটা আগে? নিঃসন্দেহে তাৎক্ষণিক উত্তরটি হবে আগে জীবন তার পরে জীবিকা। কিন্তু ভুলে গেলে চলবে না, এই দু’টিই একে অন্যের সঙ্গে ওৎপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে। বেঁচে থাকতে গেলে জীবিকার প্রয়োজন আছে। করোনার এই সঙ্কটময় পরিস্থিতিতে নিজেদের ও অন্যদের বাঁচিয়ে রাখাটাই এখন প্রধান চ্যালেঞ্জ চিকিৎসকদের।

ডাক্তার, নার্স এবং অন্য স্বাস্থ্যকর্মীদের ওপর হামলা চালালে সাত বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে। এই মর্মেই বুধবার একটি অর্ডিন্য়ান্স জারি করে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। আর এরই মধ্যে বৃহস্পতিবার ভয়ঙ্কর এক অভিযোগ করলেন দিল্লির লোক নায়ক জয় প্রকাশ নারায়ণ হাসপাতালের ডাক্তারদের থেকে শুরু করে স্বাস্থ্যকর্মীরা।

অভিযোগ, এই করোনাযোদ্ধাদের একদল করোনা আক্রান্ত রোগী রীতিমতো হুমকি দিয়েছেন। আর হুমকি দিয়ে বলছেন, আমাদের করোনাভাইরাস হলে আপনাদেরও দিয়ে যাব।

এ দিন সকালেই ওই করোনা আক্রান্তদের সেন্ট্রালাইজড অ্যাম্বুল্যান্স ট্রমা সার্ভিসেস করে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। আর তারপরই এই কাণ্ড ঘটে।

হাসপাতালের এক ডাক্তার ঘটনার বর্ণনায় বললেন, সকাল ৯টা থেকে ১২ ঘণ্টা আমরা ডিউটি করছি। ১২০ জন রোগীকে আমাদের হাসপাতাল থেকে আজই কোয়ারানটিন সেন্টারে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়াও অনেক রোগীই ভর্তি হয়েছেন আজকে। এরই মাঝে হাসপাতালের বাইরে আমাদের সঙ্গে এক কাণ্ড ঘটে যায়। অ্যাম্বুল্যান্সে এক রোগীর সঙ্গে আরও দুই জন এসে উপস্থিত হন। অন্যান্য সব ডাক্তারই রোগীদের নিয়ে ব্যস্ত থাকার কারণে ওই রোগী এবং তাঁর পরিবারকে কিছুক্ষণের জন্য অপেক্ষা করতে বলি। কিন্তু অধৈর্য হয়ে ওরা অন্য এক ডাক্তারের কাছে চলে যান। মুখের মাস্ক খুলেই রীতিমতো বেপরোয়া ভাবে ওই ডাক্তারের একেবারে কাছাকাছি চলে আসেন। সেই ডাক্তার ওদের সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং অবলম্বন করতে বললে, কিছুটা হুমকির স্বরেই ওরা বলে ওঠেন, আমাদের যদি করোনাভাইরাস হয়, তাহলে আপনাদেরও দিয়ে যাব।

পাশ থেকে তখনই এক স্বাস্থ্যকর্মী বলে উঠলেন, ডাক্তাররা ওদের শান্ত করার চেষ্টা করলে আরও ক্ষেপে ওঠেন। এমনকী ওই ডাক্তারের শরীরে হাতও স্পর্শ করেন।

ওই ডাক্তারের কথায়, যিনি গায়ে হাত দিলেন, তিনি একজন মহিলা। তাই আমরা হাসপাতালের এক মহিলা গার্ডকে ডাকলাম। এরপরই আর এক ব্যক্তি এসে আমাদের হাসপাতালের মহিলা গার্ডকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করলেন।

কিছুটা বিষাদের সুরে ওই ডাক্তার আরও যোগ করলেন, আমরা যে রকম করোনাভাইরাসের সঙ্গে লড়ছি, প্রতিনিয়ত এই মানুষগুলোর সঙ্গেও লড়াই চালিয়ে যাচ্ছি। ওরা আসে আর আমাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে চলে যায়।

আর এক মহিলা ডাক্তার বলে উঠলেন, কঠিন সময়ে এই ধরনের হুমকি আর শাসানি আসলে আমাদের মনোবল ভেঙে দিচ্ছে। এরকম চলতে থাকলে, কাজ করা সত্যিই দুষ্কর হয়ে যাচ্ছে। যারা ডাক্তার কে এমন কথা বলছে তারা বর্বর, অসভ্য ,অমানুষ ,পিশাচ। ওই সব অশিক্ষিত মানুষরা ভুলে গেছে মন্দির মসজিদ গির্জা সব বন্ধ শুধু ভগবান রুপি ডাক্তাররাই মানুষ বাঁচানোর কাজ করছেন।

পূর্বপশ্চিমবিডি/জিএম

করোনা,ডাক্তার,নার্স,স্বাস্থ্যকর্মী,ভারত
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close