• বৃহস্পতিবার, ০৪ জুন ২০২০, ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
  • ||

কোয়ারেন্টিনে থাকলে ঘণ্টায় ঘণ্টায় সেলফি পাঠাতে হবে

প্রকাশ:  ৩১ মার্চ ২০২০, ১৭:০২ | আপডেট : ৩১ মার্চ ২০২০, ১৭:০৬
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রতীকী ছবি

শুধু মুখেমুখে ‘কোয়ারেন্টিনে আছি’ আর কাজেকর্মে এলাকায় ঘুরে বেড়াবেন? সেটা আর হতে দিচ্ছে না ভারতের কর্নাটক রাজ্যের সরকার। এখন থেকে করোনা আক্রান্ত সন্দেহে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা সন্দেহজনক রোগীদের বিষয়ে খোঁজখবর রাখতে ওই রাজ্যের সরকারের রাজস্ব বিভাগ একটি নতুন মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ‘কোয়ারেন্টিনে ওয়াচ’ চালু করেছে। যারা বর্তমানে নিজের বাড়িতে কোয়ারেন্টিনে আছেন তাদের প্রতি ঘণ্টায়-ঘণ্টায় সেলফি তুলে পাঠাতে হবে ওই অ্যাপের মাধ্য়মে। শুধু এতেই ক্ষান্ত নয় কর্নাটক সরকার। তারা জানিয়েছে, এই নির্দেশ অমান্যকারীদের ধরে নিয়ে এসে গণবিচ্ছিন্নকরণ সেন্টারে রেখে দেওয়া হবে।

এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে কর্নাটকের স্বাস্থ্য ও শিক্ষামন্ত্রী ড. কে সুধাকর জানিয়েছেন, যারা ঘরে বিচ্ছিন্ন অবস্থায় রয়েছেন তাদের প্রত্যেককেই নিজেদের গতিবিধি সম্পর্কে বিস্তারিত জানাতে হবে। শুধু তাই নয়, প্রতি ঘণ্টায় তাদের সেলফি তুলেও পাঠাতে হবে।

ড. কে সুধাকর বলেছেন, ‘হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা সবাইকে তাদের বাড়ি থেকে প্রতি এক ঘণ্টা অন্তর-অন্তর তাদের সেলফি সরকারের কাছে পাঠাতে হবে। যদি কোনো ব্যক্তি রাত ১০ টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত ঘুমানোর সময় ছাড়া প্রতি ঘণ্টায় সেলফি না দেয়, তবে তাদের বাড়িতে পৌঁছে যাবেন সরকারি প্রতিনিধি, সরকারের তরফ থেকে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে, তাদের ধরে এনে গণপৃথকীকরণ কেন্দ্রে নিয়ে আটকে রাখা হবে।’

কর্নাটকের সরকারি অ্যাপ কোয়ারেন্টাইন ওয়াচ থেকে যে সেলফি পাঠানো হবে তার সঙ্গে জিপিএস লাগানো থাকায়, ওই ব্যক্তি নির্দিষ্ট স্থানে রয়েছেন কিনা তারও প্রমাণ পাওয়া যাবে।

প্রসঙ্গত, দিল্লির একটি মসজিদে অনুষ্ঠিত তাবলিগ জামাত থেকে ব্যাপক হারে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। ওই তাবলিগে যোগ দিয়ে বহু মানুষ প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ইতোমধ্যে সাতজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি। এ ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পরেই নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। ওই মসজিদটি সিল করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার।

এভাবে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঘটনায় দিল্লির ওই মসজিদের ইমামের বিরুদ্ধে পুলিশকে মামলা (এফআইআর) করার নির্দেশ দিয়েছে কেজরিওয়াল সরকার। পাশাপাশি দিল্লির পশ্চিম নিজামুদ্দিনে তাবলিগ জামাতের মসজিদ থেকে কমপক্ষে ৮৫০ জনকে অন্য একটি জায়গায় কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

ইতোমধ্যে ন্যুনতম ২০০ জনের শরীরের নমুনা সংগ্রহ করে করোনা সংক্রমণ হয়েছে কিনা তার জন্য পরীক্ষা করতে পাঠানো হয়েছে। এদের মধ্যে ২৪ জনের শরীরে ওই সংক্রমণ হয়েছে বলেও প্রমাণ মিলেছে। সংক্রমিতদের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেই আশঙ্কা করছে দিল্লি সরকার।

মঙ্গলবার পর্যন্ত ভারতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে এক হাজার ২৫১ জন, মারা গেছে ৩২ জন।

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

করোনাভাইরাস
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close