• শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭
  • ||

বান্ধবী চেয়ে কোটিপতির আবেদন, নিয়ে যাবেন চাঁদে

প্রকাশ:  ১৫ জানুয়ারি ২০২০, ১৫:৪৬
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

শুধু পরীক্ষায় পাশ করতে হবে। তাহলেই মিলবে চাঁদে যাওয়ার টিকিট। তাও আবার জাপানের কোটিপতির বান্ধবী হয়ে। অনলাইন ফ্যাশন রিটেলার ‘জোজো কোম্পানি’ জাপানের নামজাদা শপিং সাইট। ৪৪ বছরের ইউসাকু মেজাওয়া তার মালিক। সদ্যই তিনি ওই অনলাইন সাইটটি সফ্টব্যাঙ্ক গ্রুপ কর্পোরেশনকে বিক্রি করেছেন। এলন মাস্কের স্পেসএক্স-এ চড়ে প্রথম প্রাইভেট প্যাসেঞ্জার (মহাকাশচারী নন, এমন কোনও যাত্রী) হিসেবে মেজাওয়া ২০২৩ সালে চাঁদে পাড়ি দেবেন। এহেন এক ধনী ব্যবসায়ী বান্ধবী খুঁজতে আবেদনপত্র চেয়েছেন। আর যোগ্যতা বলতে, বয়স হতে হবে কুড়ির বেশি আর মহাকাশযাত্রায় আগ্রহ থাকতে হবে।

মহাকাশচারী হতে গেলে যে যে প্রশিক্ষণ ও পরীক্ষা দিতে হয়, সেগুলি উতরানোর মতো ক্ষমতা থাকতে হবে। শুনতে অবাক লাগলেও, চাঁদে যেতে পারবেন এমনই বান্ধবী চান মেজাওয়া। তবে শুধু চাঁদে যাওয়ার ইচ্ছা বা সক্ষমতা থাকলেই হবে না, বিশ্বশান্তির জন্য উদ্যোগী হতে হবে আবেদনকারীকে। তবেই ২০২৩ সালে মেজাওয়ার বান্ধবী হয়ে চাঁদে যাওয়ার টিকিট পাবেন।

‘ফুল মুন লাভার্স’ নাম দিয়ে মেজাওয়া একটি তথ্যচিত্র বানাচ্ছেন। আবেমা টিভিতে সেই তথ্যচিত্র দেখানো হবে। সেই তথ্যচিত্রের মাধ্যমেই মেজাওয়া একাকীত্ব কাটানোর দাওয়াই দিতে চান। তাই আবেদনকারীদের উদ্দেশে তিনি ওয়েবসাইটে লিখেছেন, ‘একাকীত্ব আর মনের গভীরের শূন্যতা ধীরে ধীরে আমাকে গ্রাস করে ফেলেছে। শুধুমাত্র একটা জিনিসই আমি ভাবতে পারি— একজন নারীকে ভালোবেসে যাওয়া।’ মেজাওয়ার অবশ্য এহেন একাকীত্বের কারণ আছে বলে অনেকে মনে করছেন। সদ্যই অভিনেত্রী আয়ামে গোরিকি (২৭)-র সঙ্গে তাঁর বিচ্ছেদ হয়েছে। এই অবস্থায় মানসিক শূন্যতাই তাঁকে এভাবে বান্ধবী খুঁজতে বাধ্য করেছে বলে অনেকের মত। তবে চাঁদে যাওয়ার জন্য বান্ধবী খোঁজার বিষয়টি সত্যিই অভিনব।

মেজাওয়া বলেছেন, আমি এক জীবনসঙ্গী খুঁজে নিতে চাই বহির্জগৎ। আমার ভবিষ্যৎ জীবনের সেই সঙ্গীর প্রতি ভালোবাসার কথা আমি চিৎকার করে বলতে চাই। আর তার সঙ্গেই পৃথিবীর বাইরে মহাকাশ থেকে বিশ্বশান্তির বার্তা দিতে চাই।

মেজাওয়ার বান্ধবী হতে গেলে ১৭ জানুয়ারির মধ্যে আবেদন করতে হবে। আগামী মার্চের মধ্যেই সেই আবেদনপত্র ঝাড়াই-বাছাই করে জাপানের এই বিশিষ্ট ধনী তাঁর বান্ধবী বেছে নেবেন। তারপর বছর দুই-তিনের অপেক্ষা। ততদিনে মহাকাশযাত্রার প্রশিক্ষণে পাশ করলেই ২০২৩-এ স্পেসএক্সে চড়ে মায়েজাওয়ার সঙ্গে চন্দ্রাভিযান। আর এই গোটা বিষয়টি নিয়ে তৈরি হবে তথ্যচিত্র। জাপানের ব্যবসায়ী মহল বলছে, এই তথ্যচিত্র বানানোর ব্যাপারটা নাকি সাম্প্রতিক সময়ে মেজাওয়ার এক বড় পদক্ষেপ। ইদানীং জাপানের আয় বাড়ানোর ক্ষেত্রে ট্যুইটারে নানা মত দেওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছিলেন মেজাওয়া। সেই অনলাইন বিতর্কসভায় অংশগ্রহণকারীদের পিছনে তিনি ৯০ লক্ষ ডলার খরচ করেছিলেন। কাজেই মেজাওয়া যখন কোনও তথ্যচিত্র বানাচ্ছেন, সেটা এক মহার্ঘ্য বস্তু হবে সেটাই আশা করছে জাপানের টেলিভিশন জগতের কলাকুশলীরা। কারণ তার প্রথম ধাপে চাঁদে যাওয়ার আহ্বান করে তিনি বান্ধবী খুঁজছেন। অভিনব এই বিষয়, জাপান তো বটেই, এমনকী গোটা বিশ্বেরই নজর কেড়েছে। এবার ‘ফুল মুন লাভার্স’ তথ্যচিত্রের জন্য মেজাওয়া সঠিক বান্ধবী পান কি না, তা সময়ই বলবে।

পূর্বপশ্চিমবিডি/জিএম

কোটিপতির বান্ধবী,বিশ্বশান্তি,মহাকাশচারী,জোজো কোম্পানি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
Latest news
close