• বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬
  • ||

বড় ধরনের অর্থ সংকটে জাতিসংঘ 

প্রকাশ:  ০৯ অক্টোবর ২০১৯, ১০:৪৪ | আপডেট : ০৯ অক্টোবর ২০১৯, ১১:০৫
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক

অর্থ সংকটে পড়েছে জাতিসংঘ। সংকটের কারণে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ঠিকমতো বেতন দেয়া সম্ভব হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন সংস্থাটির মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেস। সংকট কাটিয়ে উঠতে সদস্য রাষ্ট্রের কাছে সংস্থাটির পাওনা দ্রুত পরিশোধের জন্য আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

বর্তমানে প্রায় ২৩ কোটি ডলার অর্থ ঘাটতিতে রয়েছে সংস্থাটি। এখনই অর্থায়ন না হলে চলতি অক্টোবরেই শেষ হয়ে যাবে তহবিল। সোমবার জাতিসংঘের ৩৭ হাজার কর্মীর উদ্দেশে লেখা এক খোলা চিঠিতে মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, চলতি অক্টোবরেই শেষ হয়ে যেতে পারে আমাদের সব তহবিল। খবর রয়টার্সের।

চিঠিতে মহাসচিব আরও বলেন, কর্মীদের বেতন দেয়ার ক্ষেত্রে জাতিসংঘকে এখন এক অস্থায়ী ও বিকল্প পন্থা গ্রহণ করতে হবে। সদস্য রাষ্ট্রগুলোর অর্থায়নে মোট বাৎসরিক বাজেটের মাত্র ৭০ শতাংশই পূরণ সম্ভব হয়।

চিঠিতে তিনি আরও লিখেছেন, এর মাধ্যমে গত সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ঘাটতি হয়েছে প্রায় ২৩ কোটি ডলার। যে কারণে চলতি অক্টোবরের শেষদিকে আমাদের অর্থ সরবরাহ পুরোপুরি থমকে যেতে পারে।

চিঠিতে অতিরিক্ত ব্যয় কমাতে প্রয়োজন ছাড়া কনফারেন্স ও বৈঠক স্থগিত করার কথা বলেছেন সংগঠনটির এই মহাসচিব। একই সঙ্গে কর্মকর্তাদের বিদেশ ভ্রমণের প্রবণতাও কমিয়ে আনার দিকে মনোনিবেশ করার আহ্বান জানানো হয়েছে।

অর্থ সংকট কাটাতে চলতি বছরের প্রথম দিকেই সদস্য দেশগুলোকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছিলেন গুতেরেস। তবে তার এই আহ্বানে সাড়া মেলেনি বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন। পরিচয় গোপন রাখার শর্তে সংগঠনটির এক কর্মকর্তা জানান, জাতিসংঘ মহাসচিবের এ আহ্বানে এখন পর্যন্ত সদস্য রাষ্ট্রই সাড়া দেয়নি। বিশ্লেষকদের মতে, জাতিসংঘের চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরের জন্য মাত্র ৫৪০ কোটি ডলার বাজেট বরাদ্দ রয়েছে। যার প্রায় ২২ শতাংশই প্রদান করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

তবে জাতিসংঘে অর্থায়ন ক্রমেই কমিয়ে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। ইতিমধ্যে জাতিসংঘ জনসংখ্যা তহবিলে অর্থ সরবরাহ বন্ধের ঘোষণা দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। পূর্বপশ্চিমবিডি/ওআর

জাতিসংঘ,মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেস,ডোনাল্ড ট্রাম্প,যুক্তরাষ্ট্র
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close