Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১ কার্তিক ১৪২৬
  • ||

পৃথিবীতে যতো প্রাণী আছে সবচেয়ে ভয়ংকর কীট মশা: বিবিসি

প্রকাশ:  ২৮ জুলাই ২০১৯, ২১:৩৫
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক
প্রিন্ট icon
দেশে মশক নিধন কর্মসূচির পরেও এক আতঙ্কের নাম এডিস মশা

মশা আকারে ক্ষুদ্র হলেও অত্যন্ত ভয়ংকর। পৃথিবীতে যতো প্রাণী আছে তার মধ্যে সম্ভবত সবচেয়ে মারাত্মক এই কীট।

ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া, জীবাণু- সবই বহন করে এই মশা। শুধু বহন করেই ক্ষান্ত হয় না, সামান্য এক কামড়ে এসব ছড়িয়ে দিতে পারে একজন থেকে আরেক জনের শরীরেও।

এর মধ্যে সবচেয়ে ভয়ঙ্কর এডিস মশা। এর জন্ম আফ্রিকায়। চারশো বছর আগে। কিন্তু এর পর এটি পৃথিবীর গ্রীষ্ম মণ্ডলীয় সব এলাকায় ছড়িয়ে পড়েছে। ক্ষুদ্র এই প্রাণীটি পরিচিত 'এশীয় টাইগার' হিসেবে।

আন্তর্জাতিক এক পরিসংখ্যান বলছে, মশার কারণে শুধু এক বছরে নানা রোগে আক্রান্ত হয় ৭০ কোটির মতো মানুষ। তাদের মধ্যে মারা যায় ১০ লাখেরও বেশি। বাংলাদেশেও প্রতিবছর বহু মানুষের মৃত্যু হয়।

শুধু এবছরের জুন-জুলাই মাসেই এডিস মশা-বাহিত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছে দশ হাজারের মতো মানুষ। সরকারি হিসেবে এপর্যন্ত মারা গেছে আটজন। কিন্তু আশঙ্কা করা হয় এই সংখ্যা এরচেয়েও বেশি।

মশা নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্যে বাংলাদেশে বিশেষ করে রাজধানী ঢাকায় বছরের পর বছর ধরে মশক নিধনের জন্যে নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। কিন্তু তারপরেও এডিস মশার কারণে যে ডেঙ্গু ও চিকনগুনিয়ার সংক্রমণ ঘটে সেই মশা এখন মানুষের কাছে এক আতঙ্কে পরিণত হয়েছে।

ফলে প্রশ্ন উঠেছে মশক নিধনের মতো কর্মসূচির কার্যকারিতা নিয়ে।

ঢাকায় যে হারে জনসংখ্যা বেড়েছে, যেভাবে গড়ে উঠেছে অপরিকল্পিত বাড়িঘর ও পরিবেশ, তাতে শুধু ওষুধ স্প্রে করে আসলেই কি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব?

একারণে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে কর্তৃপক্ষ এখন দুটো বিকল্প উপায় বিবেচনা করছে। এজন্যে বিশেষজ্ঞদের নিয়ে একটি কমিটিও গঠন করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। তারা এখন মশা মারতে কামান দাগানো নয় বরং মশা দিয়েই চাইছেন 'ডেঙ্গু মশা' মোকাবেলা করতে। বিবিসি বাংলা

পূর্বপশ্চিম/ এআর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত