• শনিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৯, ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
  • ||

হিন্দুত্ববাদী বিজেপির ওয়েবসাইটে গরুর মাংসের রেসিপি

প্রকাশ:  ০১ জুন ২০১৯, ১৮:১৭
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারতের ১৭তম লোকসভা নির্বাচনে নিরঙ্কুশ জয় পেয়ে দ্বিতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রীর শপথ নিচ্ছিলেন নরেন্দ্র মোদী। ঠিক তখনই মোদির দল ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) অফিসিয়াল ওয়েবসাইট হ্যাক করে সেখানে গরুর মাংস রান্নার রেসিপি পোস্ট করা হয়।

বিজেপির ওয়েবসাইটে গরুর মাংসের ছয়টি রেসিপি দেওয়ার পাশাপাশি ‘বিফ ফ্লাই’ ও ‘বিফ কিমার’ ছবি পোস্ট করা হয়। ছবির নিচে লেখা ছিল ‘হ্যাকড বাই ‘শ্যাডো­­ ভি১পি৩আর’। এছাড়া ‘বিজেপি লিডারশিপ’ পাতার জায়গায় দেখা গেছে ‘বিফ লিডারশিপ’। ওই পাতায় ‘মিটলোফ’ এর ছবি ছিল।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, হ্যাক হওয়ার কিছুক্ষণ পরই বিজেপির ওয়েবসাইটে আর প্রবেশ করা যাচ্ছিল না। ভারতে লোকসভা নির্বাচনের আগেও এই দলটির ওয়েবসাইট হ্যাক করা হয়েছিল এবং সেময় অনেকদিন ওয়েবসাইটটি বন্ধ ছিলো।

মোদীর হিন্দুত্ববাদী দল বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর থেকেই গরু নিয়ে বিভিন্ন গুজব তুলে ভারতে মুসলমানদের ‍উপর নানা নিপীড়ন-নির্যাতন শুরু হয়। এমনকি গরুর মাংস সংরক্ষণ এবং গরু পরিবহনের অভিযোগে গণপিটুনিতে কয়েকজন প্রাণও হারান।২০১৭ সালের মে মাসে জবাই করার জন্য গরু চুরির চেষ্টা করছিল অভিযোগ তুলে ভারতের আসামে উত্তেজিত জনতা মুসলমান দুই ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করে।

ওই সময় প্রকাশিত হিউম্যান রাইটস ওয়াচের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, ২০১৪ সালে ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) সরকার গঠনের পর থেকে দেশটির মুসলিম সম্প্রদায়ের উপর হামলার ঘটনা অনেক বেড়ে গেছে। ২০১৫ সালের মে মাস থেকে ২০১৭ সালের মে মাস পর্যন্ত ভারতে অন্তত ১০ জন মুসলমানকে গোরক্ষার নামে উত্তেজিত জনতা পিটিয়ে হত্যা করেছে।

মানবাধিকার কর্মীদের অভিযোগ, গোরক্ষার নামে এ হত্যাকাণ্ড এবং নিপীড়ন বন্ধে মোদী সরকার কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণে অনিচ্ছুক। ফলে পুলিশও তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয় না।

পিপিবিডি/এস.খান

বিজেপি,গরুর মাংস
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত